বিভাগ: সম্পাদকীয়

জনকের শততম জন্মদিনের শ্রদ্ধাঞ্জলি

১৭ মার্চ। বাঙালির ইতিহাসের অনন্য দিন। মধুমতি কণ্ঠলগ্ন বাইগার নদীর তীরে আজ থেকে ৯৯ বছর আগে মহাকাশ থেকে অন্যরকম সূর্যোদয় হয়েছিল। সূর্য যেমন মহাকাশে স্থির থেকে শত কোটি বছর ধরে আলো বিকিরণ করে চলেছে; তেমনি ৯৯ বছর আগে টুঙ্গিপাড়ায় যে শিশুটি ভূমিষ্ঠ হয়েছিল, অনাগত কাল ধরে তার কীর্তিগাথা মানবেতিহাসে জ্বলজ্বল করে আলো বিচ্ছুরণ করবে। এই গ্রহ যতদিন থাকবে, এই দেশ- বাংলাদেশ যতদিন থাকবে, ততদিন সেই ‘খোকার’ নাম উচ্চারিত হবে; ইতিহাসে যিনি শেখ মুজিবুর রহমান। মানুষের মনে বঙ্গবন্ধু। চেতনায় জাতির পিতা।
এ এক পরমাশ্চর্য বসন্তের দিন। আর কোনো জাতির জীবনে এমন অবিনাশী বসন্ত আছে কি না জানি না। ১৯২০ সালের ১৭ মার্চও বসন্তদিন ছিল। ১৯৫২ সালের ২১শে ফেব্রুয়ারি ছিল বসন্তকালের অষ্টম দিবস। আর ২৬ মার্চ- আমাদের প্রিয় স্বাধীনতা দিবস, সে-ও বসন্তদিন। ঋতুরাজ বসন্ত। বসন্ত যৌবনের প্রতীক। বসন্ত ভালোবাসার প্রতীক। বসন্ত সুন্দরের প্রতীক। বসন্ত ফুল ফোটার কাল। প্রকৃতি ও মানুষ, দুই-ই বসন্তে ভিন্নমাত্রা অর্জন করে। সেই বসন্তদিনে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শুভ জন্মদিন। এই বসন্তে আমার এই কবিতায়ই হোক তার বন্দনাÑ

মুজিব মানেই বসন্ত উৎসব

তুমি আসবে বলে বাংলাদেশ হাজার বছর
প্রতীক্ষার প্রহর গুনেছে।

তুমি আসবে বলে মানসসরোবর হাজার নদীতে
পবিত্র জল ঢেলে বিধৌত করেছে গঙ্গা-ঋদ্ধির পুণ্যভূমি।
তুমি আসবে বলে অঙ্গ বঙ্গ সমতট হরিকেল পুণ্ড্র কি বরেন্দ্র মিলে
সৃষ্টি করেছে সমুদ্রস্নাত বিস্ময় ব-দ্বীপ।

তুমি আসবে জেনে চর্যাগীতিকার ‘ভুসুকু বাঙ্গালী ভইলি’
আর অলৌকিক ভক্তিগীতি ও মঙ্গলকাব্যে এলো মানব বন্দনা। তোমার মুখে বুলি
যোগাতে অপভ্রংশ ছেড়ে জন্ম নিল নিজ মাতৃভাষা। সে ভাষার
মানরক্ষায় আব্দুল হাকিম করেন ক্ষুব্ধ উচ্চারণ – ‘যেজন বঙ্গেত জন্মি হিংসে
বঙ্গবাণী সেজন কাহার জন্ম নির্ণয় ন জানি।’

তুমি আসবে জেনে গুরুদেব রবীন্দ্র ঠাকুর আগাম জানিয়ে দেন
সে শুভ সংবাদ : ঐ মহামানব আসে দিকে দিকে রোমাঞ্চ জাগে…।
তুমি আসবে জেনে ‘হিমালয় থেকে সুন্দরবন হঠাৎ বাংলাদেশ
কেঁপে কেঁপে ওঠে পদ্মার উচ্ছ্বাসে…।’

তোমার জন্য প্রতীক্ষার প্রহর গুনতে গুনতে গুনতে
বিংশ শতাব্দীর উনিশটি নিস্ফল বসন্ত পেরিয়ে গেল
অবশেষে তুমি এলে বিশতম বসন্ত প্রভাতে
মধুমতি তীরে।

তারপর বাকি ইতিহাস। এই বসন্তেই ঢাকার রাজপথে
রক্তজবা ফোটে ভাষার দাবিতে – ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি।’
তোমার আহ্বানে আবার দিব্যক জাগে মুক্তির সংগ্রামে। আর এই বসন্তেই
তুমি বজ্রনির্ঘোষে এনে দিলে বাঙালির প্রিয় স্বাধীনতা।

আর এভাবেই বাঙালির বসন্তদিন হয়ে গেলো তোমার জন্মোৎসব
আমাদের ভাষার উৎসব
আমাদের স্বাধীনতার উৎসব
বাঙালির বসন্ত মানেই স্বাধীনতা; স্বাধীনতা মানেই শেখ মুজিব
শেখ মুজিব মানেই আমাদের ভালোবাসা, আমাদের বসন্ত উৎসব।

পাঠকের মন্তব্য:

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না। তারকাচিহ্নযুক্ত (*) ঘরগুলো আবশ্যক।

*