বিভাগ: সংস্কৃতি

জমকালো কান চলচ্চিত্র উৎসব

58আবু সুফিয়ান আজাদ: গত ২৭ মে অনুষ্ঠিত হয়ে গেল বিশ্বের সবচেয়ে মর্যাদাসম্পন্ন কান চলচ্চিত্র উৎসব। কান চলচ্চিত্র উৎসব পৃথিবীর অন্যতম প্রাচীন এবং প্রভাবশালী চলচ্চিত্র উৎসব। ভেনিস চলচ্চিত্র উৎসব এবং বার্লিন চলচ্চিত্র উৎসবের সাথে কানকেও সবচেয়ে প্রভাবশালী এবং মর্যাদাপূর্ণ সম্মান দেওয়া হয়। ১৯৪৬ সাল থেকে প্রতিবছর এই উৎসব পালিত হয়ে আসছে। দক্ষিণ ফ্রান্সের রিজোর্ট শহর কানে প্রতিবছর সাধারণত মে মাসে এটি পালিত হয়।
পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে এবারের ১১ দিনের আসর শেষ হয়। ১৭ মে সাগরপাড়ের শহর কানে শুরু হয় ৭০তম কান চলচ্চিত্র উৎসবের আসর। ২৭ মে ২০১৭ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের তারকাদের অংশগ্রহণ ও নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে শেষ হয়। লালগালিচায় হেঁটেছেন হলিউড-বলিউড সুন্দরীরা। প্রতিবারের মতো এবারও কানের লালগালিচায় পা রেখেছেন বলিউডের চারজন নামকরা অভিনেত্রী। তারা হলেনÑ ঐশ্বরিয়া রাই বচ্চন, সোনম কাপুর, শ্রুতি হাসান ও দীপিকা পাড়–কোন। দেশ-বিদেশের অন্য তারকাদের সাথে তারাও মাতিয়েছেন কান চলচ্চিত্র উৎসব। বলিউডের মধ্যে ঐশ্বর্য ১৬তম বারের মতো কান উৎসবে অংশ নেন প্রসাধন ব্র্যান্ড লরিয়ালের শুভেচ্ছাদূত হিসেবে।
১৭ মে উৎসবের সূচনা হয় ফ্রান্সের ছবি ‘ইসমাঈলস গোস্টস’ প্রদর্শনের মধ্য দিয়ে। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানটি উপস্থাপনার করেন ইতালিয়ান অভিনেত্রী মনিকা বেলুচি। এবারের আসরে প্রতিযোগিতা বিভাগের বিচারকদের প্রেসিডেন্ট হিসেবে ছিলেন পেদ্রো আলমোদোভার।
এ ছাড়াও জুরিবোর্ডে ছিলেন পার্ক চ্যান উক, মারান আডে, ফ্যান বিংবিং গ্যাব্রিয়েল ইয়াহেদ, উইল স্মিথ, আনিয়েস ঝাউয়ি, জেসিকা চেস্টেইন ও পাওলো সরেন্তিনো। এই আয়োজনের অফিসিয়াল পোস্টার সাজানো হয় কিংবদন্তি ইতালিয়ান অভিনেত্রী ক্লডিয়া কার্ডিনালের স্থিরচিত্র দিয়ে। হলিউড তারকাদের মধ্যে এবারের কান উৎসবের রেড কার্পেটে হেঁটেছেন নিকোল কিডম্যান, প্যারিস হিলটন, ক্রিস্টেন স্টুয়ার্ট, নাওমি ক্যাম্পবেল, লিলি রোজ, ডাউজেন ক্রোজ, ইভা লঙ্গোরিয়া, ইজাবেল গোউলার্ট, চার্লজ থ্যারন, ম্যারিয়ন কটিলার্ড, মিশচা বার্টুন, রিতা ওরা, রিহানা, স্টেসি মার্টিন, এলি ফেনিং, কোকো রোচা, এমা থম্পসনসহ আরও অনেক তারকা।
উৎসবের শেষ দিন ঘোষণা করা হয় পুরস্কার। পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে সবার নজর প্রতিযোগিতা বিভাগ পাম দ’র (স্বর্ণপাম) প্রতি। কারণ এ বিভাগের ছবির মধ্য থেকেই সম্মানজনক পাম ডি অর অ্যাওয়ার্ড ঘোষণা করা হয়। পাম ডি অর অ্যাওয়ার্ড লাভ করে পরিচালক রুবেন আস্টলান্ড-এর দ্য স্কয়ার চলচ্চিত্রটি (সুইডেন)।
এবার প্রতিযোগিতা বিভাগে লড়ছে মোট ১৯টি ছবি। এগুলো হলো হান্ড্রেড টোয়েন্টি ব্যাটমেন্টস পার মিনিট (ফ্রান্স, পরিচালক : রবিন ক্যাম্পিলো), ইন দ্য ফেড (ফ্রান্স, পরিচালক : ফাতি আকিন), দ্য ডে আফটার (ফ্রান্স, পরিচালক : হং স্যাং সু), গুড টাইম (ফ্রান্স, বেনি সাফদি ও জোশুয়া সাফদি), হ্যাপি অ্যান্ড (জার্মানি, পরিচালক : মাইকেল হানেকি), হিকারি (জাপান, পরিচালক : নাওমি কাওয়াসে), জুপিটার’র মুন (হাঙ্গেরি, পরিচালক : কর্নেল মুনদ্রুসো), দ্য ড্রেডেড (ফ্রান্স, পরিচালক : মিশেল হাজানভিসিয়ুস), দ্য বিগাইল্ড (যুক্তরাষ্ট্র, পরিচালক : সোফিয়া কপোলা), ওয়ান্ডারস্ট্রাক (যুক্তরাষ্ট্র, পরিচালক : টড হেইন্স), লাভলেস (ফ্রান্স, পরিচালক : আন্দ্রেই জিভিয়াজিন্তসেভ), দ্য কিলিং অব অ্যা স্যাক্রেড ডিয়াল (যুক্তরাষ্ট্র, পরিচালক : ইওর্গেস লানথিমস), ওকজা (যুক্তরাজ্য, পরিচালক : লিন রামসে), অ্যা জেন্টেল ক্রিয়েচার (ফ্রান্স, পরিচালক : সের্গেই লোজনিৎসা), দ্য ডাবল লাভার (ফ্রান্স, পরিচালক : ফ্রাঁসোয়া ওজোন), রদাঁ (ফ্রান্স, পরিচালক : জ্যাক দোয়াইও), দ্য মেয়ারোউইৎজ স্টোরিস (ফ্রান্স, পরিচালক : নোয়া বামব্যাচ) এবং দ্য স্কয়ার (সুইডেন, পরিচালক : রুবেন আস্টলান্ড)।
এবার ফ্রান্সের কান চলচ্চিত্র উৎসবে প্রদর্শিত হয় বাংলাদেশের দাগ চলচ্চিত্রটি। উৎসবের স্বল্পদৈর্ঘ্য বিভাগের জন্য নির্বাচিত হয় চলচ্চিত্রটি। স্বাধীনতাযুদ্ধের পটভূমিতে ছবিটি নির্মাণ করেছেন জসীম আহমেদ। দাগ মুক্তিযুদ্ধের গল্প। ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধ, ১৯৭৫ সালের রাজনৈতিক পটপরিবর্তনের মাধ্যমে স্বাধীনতা-বিরোধীদের পুনর্বাসনÑ সবই আছে সেখানে। দাগ চলচ্চিত্রটির কাহিনি ও পরিচালনা করেছেন জসীম আহমেদ, চিত্রনাট্য ও সংলাপ পান্থ শাহরিয়ার, সংগীত পরিচালনা করেছেন পার্থ বড়–য়া। অভিনয় করেছেন শতাব্দী ওয়াদুদ, শারমিন জোহা, শশী, বাকার বকুল প্রমুখ।
৭০তম আসরের পুরস্কার ঘোষণায় সেরা অভিনেতার পুরস্কার জিতেছেন জোয়াকিম ফিনিক্স। ‘ইউ অয়্যার রিয়েল হিয়ার’ ছবিতে অভিনয়ের জন্য এই পুরস্কার পেয়েছেন তিনি।
প্রথমে বুঝতে পারেন নি তাকেই ‘সেরা অভিনেতা’ ঘোষণা করা হয়েছে। উপস্থাপকের মুখে কিছু ফরাসি বাক্যের সাথে নিজের নাম উচ্চারিত হওয়ার পরও ওয়াকিন ফিনিক্স নিজের আসনেই বসে ছিলেন। অনেক পরে বুঝতে পারলেন, তিনি বিজয়ী। পুরস্কার নিতে গিয়ে নিজের জুতা জোড়া দেখিয়ে বলেন, ‘আবার ¯িœকার দেখে নিশ্চয়ই বুঝতে পারছেন এই পুরস্কারের জন্য আসলেই আমি প্রস্তুত ছিলাম না।’
সেরা অভিনেত্রীর পুরস্কার পেয়েছেন ডায়ান ক্রগার। জার্মান ভাষার ‘ইন দ্য ফেড’-এ অভিনয়ের জন্য এই পুরস্কার পেয়েছেন তিনি। সেরা পরিচালক সোফিয়া কপোলা ‘দ্য বিগাইল্ড’ ছবির জন্য। ১৯৭১ সালে একই নামে মুক্তি পাওয়া ছবির রিমেক ‘দ্য বিগাইল্ড’। যুক্তরাষ্ট্রের গৃহযুদ্ধের সময়কার এক আহত সৈনিক ও একদল স্কুলছাত্রী নিয়ে ছবির গল্প। ছবির জন্য সেরা পরিচালক হলেন সোফিয়া কপোলা। কান চলচ্চিত্র উৎসবে সোফিয়ার এটা প্রথম জয় হলেও এই উৎসবের সাথে তার সম্পর্কটা কিন্তু নতুন নয়। তার বাবা হলিউড নির্মাতা ফ্রান্সিস ফোর্ড কপোলা দুবার জিতেছেন এই উৎসবের সবচেয়ে বড় সম্মান পাম দ’র (স্বর্ণপাম)। এ নিয়ে কানে দ্বিতীয়তার কোনো নারী ‘সেরা পরিচালক’ হলেন। পুরস্কার গ্রহণ করতে গিয়ে সোফিয়া বলেন, এই ছবি বানানোর সময় রোমাঞ্চিত ছিলাম। আর কানে এই সম্মান পাওয়ার মধ্য দিয়ে ছবির যাত্রাটা ভালোই হলো বলা চলে।

এক নজরে কান পুরস্কার
পাম দ’র : দ্য স্কয়ার (রুবেন অস্টলুন্ড, সুইডেন)
গ্র্যাঁ প্রিঁ : বিপিএম ১২০ বিটস পর মিনিট (রবিন ক্যাম্পিলো, ফ্রান্স)
জুরি প্রাইজ : লাভলেস (আন্দ্রেই জিয়াগিন্তসেভ, রাশিয়া)
সেরা অভিনেতা : জোয়াক্যু ফিনিক্স (ইউ ওয়্যার নেভার রিয়েলি হিয়ার, ব্রিটেন)
সেরা অভিনেত্রী : ডায়েন ক্রুজার (ইন দ্য ফেড, জার্মানি)
সেরা পরিচালক : সোফিয়া কপোলা (দ্য বিগাইল্ড)
সেরা চিত্রনাট্যকার (যৌথভাবে) : লিন রামসে (ইউ ওয়্যার নেভার রিয়েলি হিয়ার) এবং গ্রিসের ইওর্গস লানতিমস (দ্য কিলিং অব দ্য স্যাক্রেড ডিয়ার)
ক্যামেরা দ’র : লিওনর সেরাই (ইয়ং ওম্যান, ফ্রান্স)
সেরা স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র : অ্যা জেন্টেল নাইট (কিয়াই ইউ ইয়াং, চীন)
৭০তম বার্ষিকী পুরস্কার : নিকোল কিডম্যান।

পাঠকের মন্তব্য:

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না। তারকাচিহ্নযুক্ত (*) ঘরগুলো আবশ্যক।

*