বিভাগ: ক্রীড়া

হেরেও এশিয়া কাপে উজ্জ্বল বাংলাদেশ

PMক্রীড়া ডেস্ক: বাংলাদেশ এশিয়া কাপ ক্রিকেটের ফাইনাল খেলবে, খেলবে নাÑ এমন কল্পনা-আশা দুটিই ছিল। তবে তামিম-সাকিবের দলের বাইরে চলে যাওয়ার পরও তা ছিল এক অভাবিত স্বপ্ন। কিন্তু সুপার ফোরে পাকিস্তানকে উড়িয়ে দিয়ে স্বপ্নরথ রচিত হয়েছিল।
টস শেষে ব্যাটিং ইনিংসের সূচনার পর শতভাগ সম্ভাবনা সৃষ্টি হয়েছিল ফাইনাল ম্যাচ শুরুর পর থেকে। বিশেষ করে উদ্বোধনী জুটিতে ভারতের বিপক্ষে রেকর্ড রান; লিটন-মিরাজের অসাধারণ পার্টনারশিপ। যেনÑ সব সম্ভাবনাই ঝুঁকে পড়েছিল আবেগপ্রবল ক্রিকেটপ্রেমী বাঙালিদের ওপর। কিন্তু সেই বাংলাদেশ মধ্য ইনিংসে ভারতীয়দের কালো থাবায় রঙিন স্বপ্ন ফানুস হতে লাগল। বাংলাদেশ এক ব্যাটিং-নায়ক লিটন দাশ সৌম-মিরাজে ২২২ রানে থিতু হয়েছিল। যা নিয়ে ভারতের প্রলম্বিত ব্যাটিং লাইনআপের বিপক্ষে জয়ের স্বপ্ন দেখা ছিল অবিশ্বাস্য। রোহিত-ধনি-ধাওয়ানরা এই রানের পর হয়তো ঘুমের জয়ের স্বপ্ন বিভোরই ছিলেন। অথচ ওই রান নিয়েই বাংলাদেশ ভারতকে শাসন করেছে শেষ বল পর্যন্ত। ভাগ্যদেবী বাংলাদেশের আসনে নেমে এলে নাম লেখা হতো দুঃস্বপ্ন জয়ের আখ্যানে। এশিয়া কাপটা ধরা নেমে এসেও যেন আসছে না। এ নিয়ে তিনবার ফাইনালে বাংলাদেশের স্বপ্ন-প্রত্যাশা ভেঙেচুরে খানখান হয়ে গেল। এর আগে ২০১৪ এবং ২০১৬ সালে বাংলাদেশ ফাইনালে গিয়েও শিরোপার দেখা পায়নি।
বাংলাদেশের দুই ওপেনার লিটন এবং মিরাজ অসামান্য শুরু করেছিলেন। যেভাবে তারা খেলছিলেন, একসময় মনে হচ্ছিল ৩০০ রান সহজেই উঠবে। কিন্তু, তখনই নামে ধ্বংসের প্রবলতা। তবে রূপকথার ইনিংস খেলেছেন লিটন দাশ। দলকে দারুণ একটা শুরুই শুধুই দেয় নি, করেছেন ক্যারিয়ারের প্রথম শতরানও (১২১)। মুস্তাফিজ-রুবেল-মাশরাফিতে ভারতের ইনিংসে নেমে এসেছিল আশঙ্কার মেঘ।
বাংলাদেশ হেরে গেলেও এমন হারে লজ্জার ছিটোফোঁটাও নেই। এই হার গৌরবের। এই হার বাংলাদেশের ওপর আইসিসির চাপিয়ে দেওয়া হার। লিটন দাশের আউটটি কতটা অন্যায়Ñ তা নিয়ে বিশ্ব মিডিয়ায় এখনও তোলপাড় চলছে। এশিয়া কাপে ভারতকে কাঁপিয়ে-নাচিয়ে শেষ হাসি হাসতে না পারলেও এমন ম্যাচ বাংলাদেশের প্রতি আসরে, প্রতি ম্যাচে অনুপ্রাণিত করবে।
ক্রিকেট নিয়ে স্বপ্ন দেখা নতুন নয়। বাঙালিদের চিরায়ত আনন্দ-বিনোদনের সঙ্গে ক্রিকেট কতটা মিশে আছে; তা এবারও প্রমাণিত হয়েছে এশিয়া কাপে। গ্রুপ পর্বে এক ম্যাচ খেলে আউট তামিম, ফাইনালের আগেই নেই সাকিব। তারপরও বাংলাদেশ পাকিস্তান-শ্রীলংকা-আফগানদের হটিয়ে ফাইনালে উঠেছিল। আর ফাইনালে ভাগ্যের কাছেই হেরে গেছে বাংলাদেশ।
এশিয়া কাপের প্রাপ্তি সহজভাবে রানার্সআপ। কিন্তু আসলে কী তাই! যখনই এশিয়ার আসর ফিরে আসবে; ফিরে আসবে দুর্দান্ত বাংলাদেশের নাম। তবে তার চেয়েও বেশিÑ বাংলাদেশের মিডল অর্ডার সুপার ফ্লপ, লোয়ার মিডল অর্ডারেও ধস, লিটন দাশ তৃতীয় বিচারকের অন্যায় আউটের শিকার, ৪৮তম ওভারে রুবেল দুর্দান্ত বলে ‘আনারি’ ভুবনেশ্বরের ছক্কা, শেষ ওভারে লেগ বাইÑ এসব রাজ্যের ‘যদি-কিন্তু’র যোগফলের সমীকরণ ঠঁাঁই করে নেবে ক্রিকেট উৎসাহী বাংলাদেশের সমর্থকদের স্মৃতির মণিকোঠায়।

পাঠকের মন্তব্য:

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না। তারকাচিহ্নযুক্ত (*) ঘরগুলো আবশ্যক।

*