আগমনী বার্তাহীন বিপিএল

2-6-2019 8-36-53 PMঅনিন্দ্য আরিফ: বিপিএল কতটা জমেছে তার চেয়ে অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ তামিম-সাকিব-রিয়াদ-মাশরাফিরা কেমন করলেন! আসরের নতুন প্রতিভা কাকে খুঁজে পাওয়া গেল। সাদামাটাভাবে এটাই এখন জাতীয় ক্রিকেট দলের জন্য মৌলিক বিষয়। কারণ দু-তিনজন বাদ দিলে জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা খুব একটা আলো ছড়াতে পারেন নি এবারের আসরে। বরং বিদেশিতেই মশগুল থাকতে হয়েছে ভক্ত-সমর্থকদের। ওয়ানডে দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা এমপি অবশ্য মনে করেনÑ বিপিএলে ভালো না করেও জাতীয় দলে অনেকেই ভালো করবেন। তবে নতুন তারকাদের খোঁজ পাওয়া যায়নি; যা মাশরাফির মতো অনেককেই হতাশ করেছে।
তরুণদের পারফরম্যান্স ভালো নয়Ñ বাংলাদেশের ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফির ব্যাখ্যা, ‘বিপিএল কিন্তু এখন আর ছোট কোনো টুর্নামেন্ট নয়। আগের পর্যায়ে নেই এটি। আমি নিজেও এটি খেলতে চাপ অনুভব করি। সিনিয়র যারা আছে, তারা সবাই চাপ অনুভব করে। আমি নিশ্চিত সাকিবও চাপ অনুভব করে। এখানে তরুণদের জন্য চাপটা আরও অনেক বেশি। তবে বিপিএলে যারা ভালো করেনি তারা জাতীয় দলে পারফরম করবে না, এটা আমি বিশ্বাস করি না। তাদের নিয়ে আমার আত্মবিশ্বাস আছে। আমার বিশ্বাস, নিউজিল্যান্ড সফরের প্রথম ম্যাচ থেকেই তারা ঘুরে দাঁড়াবে।’
বিপিএলের ষষ্ঠ আসর ইতোমধ্যে লীগ পর্ব শেষ করেছে। সাত দলের মধ্যে থেকে চার দলের শিরোপা লড়াই শেষে অনুষ্ঠিত হবে ফাইনাল। চ্যাম্পিয়নশিপ লড়াইয়ের পর ক্রিকেটপ্রেমীরা খুঁজে পাবে আনন্দ-বেদনার ঠিকানা। জয়ী দলের সমর্থকরা যখন ঢোল-বাদ্যে নেচে গেয়ে উঠবেন; আর তখন হার নিয়ে আরেক পক্ষকে কষ্ট-কান্নায় ভাসতে হবে। সেই অপেক্ষা ৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত।
রংপুর রাইডার্সকে নিয়ে দারুণ ফর্মে রয়েছেন নবনির্বাচিত সংসদ সদস্য মাশরাফি বিন মর্তুজা। বিপিএল তার দল চূড়ান্ত পর্বের শীর্ষ দল। স্বাভাবিক কারণেই দল নিয়ে ব্যস্ত থাকায় অধিবেশনের শুরুতে সংসদে যোগ দিতে পারেন নি নড়াইল-২ আসন থেকে নবনির্বাচিত সংসদ সদস্য মাশরাফি বিন মর্তুজা। চূড়ান্ত পর্ব শুরুর গ্যাপে বিপিএল চলাকালেই তিনি সংসদ অধিবেশে যোগ দিয়েছেন। নির্বাচনের মাত্র পাঁচ দিন পরই শুরু হয়েছিল বিপিএলের জমজমাট লড়াই। মাশরাফি বিপিএলে নেতৃত্ব দিচ্ছেন রংপুর রাইডার্সকে। তার নেতৃত্বে গত আসরে রংপুর বিপিএল চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। এবারও বিপিএলে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার স্বপ্ন দেখছেন মাশরাফির সমর্থকরা। ৩ জানুয়ারি বিকাল সাড়ে ৪টা থেকে শুরু হওয়া সংসদের মুলতবি বৈঠকে যোগ দিয়েছেন মাশরাফি বিন মর্তুজা এমপি। ৩০ জানুয়ারি অধিবেশন শুরুর দিনে স্পিকার এবং ডেপুটি স্পিকার নির্বাচন করা হয়। সংসদের যাত্রার শুরুর দিন রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ ভাষণ দেন। এরপর সংসদের বৈঠক মুলতবি করা হয়।
সংসদ অধিবেশনে যোগ দেওয়ার আগে মাশরাফি বিন মর্তুজা বিপিএল নিয়ে বলেন, তরুণ ক্রিকেটারদের মানসিক শক্তি বাড়াতে হবে। তাদের প্রতিভা আছে কিন্তু মানসিক শক্তি কম। মানসিকভাবে শক্ত হলে মাশরাফির মতে এরাই পরিণত হবে বিশ্বমানের ক্রিকেটারে।
নিজের ১৮ বছরের ক্যারিয়ারসিদ্ধ ক্রিকেটঋদ্ধ মাশরাফি বলেন, বিদেশি ক্রিকেটারদের সঙ্গে আমাদের তরুণ ক্রিকেটারদের মূল পার্থক্য মানসিক শক্তিতে। বিদেশিরা যেটা করে, যা প্রয়োগ করে, সেটা পরিষ্কার চিন্তা থেকে করে। আমরা করি দ্বিধাদ্বন্দ্ব নিয়ে। এবি ডি ভিলিয়ার্সের সঙ্গে এ বিষয়টা নিয়ে আমার কথা হয়েছে। সেও বলেছে। মানসিক দিকটাতে উন্নতি ঘটাতে পারলে এই তরুণরাই বিশ্বমানের ক্রিকেটারে পরিণত হবে।
নিজের বোলিং সম্পর্কে মাশরাফি বলেন, বেশির ভাগ সময়ই আল্লাহর ওপর ছেড়ে দিই। যা হওয়ার হবে। তবে টার্গেট থাকে জায়গামতো বল ফেলার। একজন বোলারের জন্য এটিই গুরুত্বপূর্ণ। ধারাবাহিকভাবে এক জায়গায় বল ফেলে যাওয়া। বাকিটা কিন্তু আপনার হাতে নেই। অনুশীলনে ওভাবেই করি বলগুলো এক জায়গায় পড়ছে কি না সেটা অনুশীলন করি।
প্রতিবছরের মতো এবারও বিপিএলের জমজমাট মঞ্চ মাতিয়ে রাখছেন বিদেশি ক্রিকেটাররা, আর দেশের তারকা ক্রিকেটারদের অনেকেও থেকে যাচ্ছেন আড়ালে। গত ৫টি বিপিএল ও চলমান ষষ্ঠ বিপিএলের লিগ পর্ব শেষে সেই দৃশ্যই দেখা গেছে। তবে মাশরাফি মনে করেন, এক বছর পরপর বিপিএল আসে, এই টুর্নামেন্টটা সহজও না।
কথা উঠেছে বরাবরের মতো ঢাকার মন্থর উইকেটে বিপিএল কতটা কার্যকর, তা নিয়েও। সেখানে মাশরাফির ভাষ্যÑ বিশেষ করে ঢাকায় যেহেতু সবচেয়ে বেশি খেলা হয় সেহেতু ঢাকার উইকেটে অনেক চ্যালেঞ্জ থাকে ব্যাটসম্যানদের। আমি কখনই দেখি না কাজটা সহজ। শুধু তা-ই নয়, আছে বিদেশি ক্রিকেটার-প্রীতির অভিযোগও। জয়ের খোঁজে থাকা ফ্র্যাঞ্চাইজিরা স্বভাবতই বিদেশি ক্রিকেটারদের বেশি গুরুত্ব দেয়। এতে স্থানীয় তারকারাও অনেক সময় থেকে যান সাজঘরে, একাদশের বাইরের খেলোয়াড় হিসেবে। মাশরাফি বলেন, স্থানীয় ক্রিকেটাররা যদি বেশি সুযোগ পায়, যদি আরও একটা টি-২০ ফরম্যাটে টুর্নামেন্ট হয়, তাহলে তরুণরা সুযোগ পাবে। তখন ওরা আরও বেশি আত্মবিশ্বাসী হবে।
চলতি আসরের হিসাব-নিকাশটা একটু এলেবেলেই ছিল। দারুণ দল হওয়ার পরও এবার খুলনা টাইটান্স ছিল লিগ টেবিলের একেবারে তলানীতে। আর ঢাকা ডায়নামাইটসের সমান পয়েন্ট থাকার পরও ৫ নম্বর দল হিসেবে হিসেবে ছিটকে পড়েছে রাজশাহী কিংস। ১২ ম্যাচে ১২ পয়েন্ট ছিল দুই দলেরই। কিন্তু রান রেটে এগিয়ে থাকায় ঢাকা উঠেছে শেষ চারের লড়াইয়ে। এখানে ঢাকাকে এলিমিনেটর ম্যাচে পয়েন্ট টেবিলের তিনে থাকা চিটাগং ভাইকিংসের মুখোমুখি হবে। এই ম্যাচের বিজয়ী দল খেলবে দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারের বিপক্ষে। যেখানে তাদের প্রতিপক্ষ প্রথম কোয়ালিফায়ারের পরাজিত দল। প্রাথমিক পর্বের শীর্ষ দুই দল রংপুর রাইডার্স ও কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স ফাইনালে ওঠার জন্য পাচ্ছে দুটি সুযোগ।
পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষ দুইয়ে থেকে বিপিএলের প্রথম কোয়ালিফায়ারে খেলা আগেই নিশ্চিত করেছিল রংপুর ও কুমিল্লা। নিজেদের শেষ ম্যাটচা ছিল তাই দু-দলের জন্যই কোয়ালিফায়ারের পোশাকি মহড়া।
এবারের আসরে রংপুর রাইডার্স ১২ ম্যাচে সর্বোচ্চ ৮টি জয় পেয়ে চূড়ান্ত পর্ব নিশ্চিত করে শীর্ষে থেকে। রবিন লিগে সমান পয়েন্ট নিয়ে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়াও জায়গা করে নিয়েছে পয়েন্ট টেবিলের দ্বিতীয় আসনে। চট্টগ্রাম ভাইকিংস ১৪ পয়েন্ট নিয়ে হয়েছে তৃতীয়। ঢাকা ডায়নামাইট এবং রাজশাহী কিংসের পয়েন্ট সমান হলেও নিট রান রেটে ভাগ্য খুলেছে সাকিবদের ঢাকার। খুলনার পয়েন্ট মাত্র ১২ ম্যাচে ৪।
গতবারের মতোই আসরের ফরম্যাট। সেরা চার দলের মধ্যে প্লে-অফ লড়াই, ম্যাচ ৩টি। একটি এলিমিনেটর, একটি প্রথম কোয়ালিফায়ার এবং একটি দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার। তারপর সেরা দুই দলকে নিয়ে ফাইনাল। দর্শক-সমর্থকদের অনেকেই এই ম্যাচগুলো মাঠে গিয়ে দেখেছেন। অপেক্ষায় রয়েছে আরও ম্যাচ দেখার। এলিমিনেটর এবং প্রথম কোয়ালিফায়ারের দুটি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়েছে ৪ ফেব্রুয়ারি। প্রথম ম্যাচে ঢাকা ডায়নামাইট উড়িয়ে দিয়েছে চট্টগ্রাম ভাইকিংসকে। আর প্রথম দল হিসেবে ফাইনাল নিশ্চিত করেছে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া। ওই দিন মাশরাফির রংপুর তাদের বিপক্ষে দাঁড়াতে পারেনি।  অবশ্য মাশরাফিদের এখনও সুযোগ থাকছে ফাইনালে খেলা।
বিপিএলের ম্যাচগুলো এবার ঢাকা, সিলেট ও চট্টগ্রামে  অনুষ্ঠিত হয়েছে। আর বিপিএলের শেষ চারের লাইনআপের জন্য পরতে পরতে রোমাঞ্চ ছড়ানো ষষ্ঠ অপেক্ষা করতে হয়েছে শেষ ম্যাচটি পর্যন্ত। যা আসরটিকে মাতিয়ে রেখেছে শেষ পর্যন্ত।

Category:

Leave a Reply