উইন্ডিজে বাংলাদেশ সিরিজ জয়

Posted on by 0 comment

8-6-2018 6-55-08 PMউত্তরণ ডেস্ক: ওয়ানডে সিরিজে হোয়াইটওয়াশই করতে পারত বাংলাদেশ। কিন্তু হেরে গেছে ভাগ্যের কাছে। তবে বাংলাদেশের সিরিজ জয়ে বাধা সৃষ্টি করতে পারেনি ওয়েস্ট ইন্ডিজ। প্রথম ম্যাচে ৪৮ রানের জয়ের পর দ্বিতীয় ম্যাচে ৩ রানে হারা বাংলাদেশÑ সিরিজ নির্ধারণী ম্যাচে ১৮ রানের ব্যবধানে হারিয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে।
ওয়ানডে সিরিজে সব ম্যাচেই ব্যাটের রানের খরা কাটিয়েছে বাংলাদেশ। শেষ ম্যাচে ৩০২ রানের টার্গেট ছুড়ে দিয়েছে বাংলাদেশ। সেখানে উইন্ডিজের রানের ব্যাট থেমেছে ২৮৩ রানে। সিরিজে তামিম দুটি সেঞ্চুরি করেছেন। তিন ম্যাচে দুই সেঞ্চুরি ও এক হাফসেঞ্চুরিতে ২৮৭ রান তুলে তামিম ওয়েস্ট ইন্ডিজের মাটিতে সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড গড়েছেন। টপকিয়েছেন ২০১৪ সালে বাংলাদেশের বিপক্ষে দিনেশ রামদিনের ২৭৭ রানের রেকর্ড। সিরিজে মুশফিক-মাহমুদ উল্লা-সাকিব-সাব্বিররা রানের মুডে ছিলেন। আর সবাইকে ছাপিয়ে এগিয়েছিলেন অধিনায়ক মাশরাফি। যার ছোঁয়া পেয়েই টেস্টের নাকাল বাংলাদেশ বদলে গেছে।
তামিমের সেঞ্চুরি (১৩০*) এবং সাকিবের সেঞ্চুরি ছোঁয়া ৯৭ রানের প্রথম ম্যাচে বাংলাদেশ তুলেছিল ২৭৯। জবাবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ থেমেছিল ২৩১ রানে। ওয়ানডে সিরিজে বাংলাদেশের ৪৮ রানের সূচনা জয়ে নেতৃত্ব দিয়েছেন মাশরাফি (৪/৩৭)। দ্বিতীয় ম্যাচও ছিল সুনিশ্চিত জয়-প্রবাহে। কিন্তু ব্যাটসম্যানদের অনাহূত ব্যাটিংয়ের কারণে বাংলাদেশ হেরেছে ৩ রানের ব্যবধানে। ওয়েস্ট ইন্ডিজের ২৭২ রানের টার্গেট স্পর্শ করতে শেষ ১৪ বলে ১৪ রান প্রয়োজন ছিল বাংলাদেশের। হাতে ৫ উইকেট। তখনও মাশরাফি-মাহমুদ উল্লা-মাশরাফিরা উইকেটে ছিলেন। কিন্তু ব্যাটসম্যানদের অনাহূত ব্যাটিংয়ের কারণে বাংলাদেশ হেরেছে ৩ রানের ব্যবধানে। ওয়েস্ট ইন্ডিজের ২৭২ রানের টার্গেট স্পর্শ করতে শেষ ১৪ বলে ১৪ রান প্রয়োজন ছিল বাংলাদেশের। হাতে ৫ উইকেট। তখনও মুশফিক-মোসাদ্দেক-মাশরাফিরা উইকেটে ছিলেন। কিন্তু তারা পারেন নি। শেষ ওভারের প্রয়োজন ছিল ৮ রান। কিন্তু প্রথম বলেই মুশফিক ফিরে গেলেন। বাংলাদেশও হেরে গেল। অথচ দ্বিতীয় ম্যাচে দুর্দান্ত ব্যাটিং করেছেন মুশফিক (৬৮)।

Category:

Leave a Reply