কোরিয়া উপদ্বীপে উত্তেজনা : শঙ্কিত বিশ্ববাসী

Posted on by 0 comment

54সাইদ আহমেদ বাবু: হাইড্রোজনে বোমার পরীক্ষার মধ্য দয়িে উত্তর কোরয়িার নতো কমি জং উন বশ্বিকে এটাই স্মরণ করয়িে দলিনে যে আর্ন্তজাতকি সম্প্রদায়রে হুমক,ি চাপ, ভাবনা নয়িে তার তমেন মাথাব্যথা নইে। তাই বশ্বিনতোদরে বুড়ো আঙুল দখোতে র্কাপণ্য করনে নি তনি।ি অন্যদকিে যুক্তরাষ্ট্ররে একদম পটেরে মধ্যে আঘাত হানা যায় এমন সব অস্ত্র আবষ্কিার করছে উত্তর কোরয়িা। রাজধানী পয়িংইয়ংয়ে দলরে এক সমাবশেে তনিি এ কথা বলছেনে। উত্তর কোরয়িাকে তনিি দায়ত্বিশীল পরমাণু শক্তধির দশে বলওে উল্লখে করনে। উত্তর কোরয়িার প্রতষ্ঠিাতা কমি ইল সাংয়রে ১০৫তম জন্মর্বাষকিী উপলক্ষে আয়োজতি অনুষ্ঠানে সামরকি প্রর্দশনীতে সাবমরেনি থকেে উৎক্ষপেণযোগ্য ব্যালাস্টকি মসিাইল প্রথমবাররে মতো জনসমক্ষে তুলে ধরা হয় বশ্বিরে যে কোনো জায়গায় লক্ষ্যবস্তুকে র্টাগটে করার উদ্দশেে এই ক্ষপেণাস্ত্র ব্যবহার সম্ভব। এ ছাড়া, দুই কোরয়িার অভ্যন্তরীণ বষিয়ে হস্তক্ষপে করার বরিুদ্ধে তনিি আমরেকিাকে হুঁশয়িার করে দনে।
উত্তর কোরয়িা এ মুর্হূতে পৃথবিীর একটি রহস্যময় দশেরে নাম। কন্ডোলসিা রাইস দশেটকিে ‘স্বরৈতন্ত্ররে আবাসভূম’ি বলে মন্তব্য করছেলিনে। ২০০২ সালে যুক্তরাষ্ট্ররে তৎকালীন প্রসেডিন্টে র্জজ ডব্লউি বুশ দশেটকিে শয়তান চক্ররে অংশ বলছেলিনে। আর ফ্রাঙ্কো ও সথি রোজনে কছিুটা কৌতুক করে বলছেলিনে, দশেটি পয়িংইয়ংয়রে অসর্মথনরে ফল।
যুক্তরাষ্ট্ররে প্রসেডিন্টে বারাক ওবামা উত্তর কোরয়িাকে বশ্বিে ‘কবররে হুমক’ি বলে অভহিতি করছেনে। তনিি বশ্বিকে উত্তর কোরয়িার ব্যাপারে কোনো ছাড় না দওেয়ার পক্ষে মত দয়িে প্রয়োজনে আক্রমণাত্মক হতে পরার্মশ দয়িছেনে। এ ছাড়া বারাক ওবামা উত্তর কোরয়িাকে যুক্তরাষ্ট্ররে র্সাবভৌমত্বরে জন্য হুমকি বলে মনে করনে। উত্তাল বশ্বি রাজনীতরি পরমি-লে সমাজতান্ত্রকি ও র্মাকসবাদী ভাবধারায় বশ্বিাসী কমউিনস্টি শাসতি এই দশেটি পারমাণবকি সক্ষমতা র্অজন করে আমরেকিার মাথাব্যথা বাড়য়িে দয়িছেে অনকে আগইে। ২০০৬ সালে পয়িংইয়ং প্রথম নউিক্লয়িার পরীক্ষা চালায়। কন্তিু তখন থকেইে কোনো ব্যবস্থা না নওেয়ার কারণে উত্তর কোরয়িার মলিটিাররি আকার আর আগ্রাসন কবেল বড়েইে চলছে।ে পারমাণবকি অস্ত্র ও ক্ষপেণাস্ত্র পরীক্ষার জরেে ২০০৬ সাল থকেইে উত্তর কোরয়িার ওপর বভিন্নি নষিধোজ্ঞা আরোপ করে জাতসিংঘ।
র্মাকনি যুক্তরাষ্ট্র এবং উত্তর কোরয়িার দুই ভয়ঙ্কর ‘পাগলাট’ে শাসক ডোনাল্ড ট্রাম্প এবং কমি জং উনরে মধ্যে বাড়তে থাকা উত্তজেনা এবং যুদ্ধংদহেী মরণাস্ত্র প্রর্দশনীতে অস্বস্ততিে পুরো বশ্বি। উত্তর কোরয়িা এবং যুক্তরাষ্ট্ররে নজিস্ব সামরকি শক্তি নজরিবহিীনভাবে বাড়ানোর ক্ষত্রেে অনমনীয় ও হঠকারী মনোভাবরে ফলে ক্রমশ বাড়তে থাকা উত্তজেনায় এ দুদশেরে মধ্যে যে কোনো মুর্হূতে প্রবল যুদ্ধ বধেে যাওয়ার শঙ্কা প্রবল।
কমি জং উনরে আণবকি কারখানায় হামলা করার জন্য ট্রাম সকল প্রস্তুতি গ্রহণ করছে।ে কনে উত্তর কোরয়িার ওপর হামলা করার জন্য প্রসেডিন্টে ট্রাম প্রস্তুত। উত্তর কোরয়িার অপরাধ প্রসেডিন্টে কমি জং-আন রাজধানীতে বশিাল সামরকি মহড়া ও পরমাণু বোমা বানানোর পর তা পরীক্ষা চালয়িে যাচ্ছনে।
যুক্তরাষ্ট্র উত্তর কোরয়িার বরিুদ্ধে আগ বাড়য়িে সামরকি হামলা চালানোর বকিল্পটি হাতে রাখলওে এখন র্পযন্ত দশেটকিে র্অথনতৈকিভাবে এবং নষিধোজ্ঞা দয়িে চাপে রাখার বশে কছিুদনি ধরইে যুক্তরাষ্ট্র-উত্তর কোরয়িা সর্ম্পক ক্রমশ উত্তপ্ত হচ্ছ।ে এর জন্য কোরয়িার একরে পর এক ক্ষপেণাস্ত্র পরীক্ষাকইে দায়ী করে আসছে যুক্তরাষ্ট্র।
গত ৮ এপ্রলি পশ্চমি প্রশান্ত মহাসাগরে কোরীয় উপদ্বীপরে দকিে পাঠানো হয়ছেে যুক্তরাষ্ট্ররে বমিানবাহী রণতরী ইউএসএস র্কাল ভনিসন। উত্তর কোরয়িায় উসকানমিূলক ক্ষপেণাস্ত্র পরীক্ষার জবাব দতিইে ওই যুদ্ধজাহাজ সখোনে যাচ্ছে বলে জানয়িছেলি যুক্তরাষ্ট্র।
বশিষেজ্ঞরা মনে করনে, ওই এলাকায় কোনো ধরনরে সামরকি ব্যবস্থা কখনও যুক্তরাষ্ট্র নলিে উত্তর কোরয়িা এর যে জবাব দবেে তাতে দক্ষণি কোরয়িা এবং জাপানসহ ওই অঞ্চলে উপস্থতি র্মাকনি সনোবহরে ব্যাপক হতাহতরে ঘটনা ঘটব।ে
যুক্তরাষ্ট্র আর উত্তর কোরয়িার মধ্যে পাল্টাপাল্টি আক্রমণরে হুমকতিে অনকেইে আশঙ্কা করছনে আরকেটি যুদ্ধরে। প্রশ্ন উঠছেে : এবাররে যুদ্ধওে কি উত্তর কোরয়িাকে সর্মথন দবেে বশ্বিরে দ্বতিীয় পরাক্রমশালী রাষ্ট্র চীন? নাকি চীন র্দুবল থাকবে যুক্তরাষ্ট্ররে প্রত?ি এমন প্রশ্নও রয়ছেে অনকেরে মন।ে
অতীত ব্যাখ্যা করতে গলেে দখো যায় উত্তর কোরয়িার একমাত্র কূটনতৈকি মত্রিরে নাম চীন। আর এই চীন অনকে অনকে বছর যাবত উত্তর কোরয়িাকে সাহায্য-সহযোগতিার হাত বাড়য়িে দয়িে এসছে।ে বভিন্নি যুদ্ধরে ময়দানে চীনকইে সবার আগে পাশে পয়েছেে উত্তর কোরয়িা।
তবে এবার উত্তর কোরয়িার মাথার ওপর থকেে যনে সহযোগতিার হাত সরছে চীনরে।
উত্তর কোরয়িাকে আবারও বশ্বিরে দকিে ফরিয়িে আনতে এখন সবাই চীনরে দকিইে তাকয়িে আছ।ে এসব ঘটনা দখেইে চীন ও এই দুই দশেরে সর্ম্পক নয়িে নতুন করে ভাবছে বলে মনে করছনে অনকে।ে চীন কোন দকিে যায় চীনরে ওপর নর্ভির করবে আগামী দনিরে যুদ্ধ।
উত্তর কোরয়িার ক্ষপেণাস্ত্র ও পারমাণবকি পরীক্ষার হুমকরি জবাবে যুক্তরাষ্ট্ররে একটি সাবমরেনি দক্ষণি কোরয়িায় পৗেঁছছে।ে এতে কোরয়িা উপদ্বীপে নতুন করে উত্তজেনা সৃষ্টি হয়ছে।ে
জাতসিংঘ নরিাপত্তা পরষিদরে প্রস্তাবরে পরপিন্থী যে কোনো পদক্ষপেরে সব সময় বরিোধতিা করে চীন। এ অবস্থায় উত্তর কোরয়িাকে আর্ন্তজাতকি আইন মনেে চলার আহ্বান জানয়িছেে চীন। সইে সাথে সব পক্ষকে শান্ত থাকার পাশাপাশি যে কোনো সংঘাত এড়য়িে চলার পরার্মশ দয়িছেে বইেজংি। প্রসেডিন্টে ট্রাম্প যে কোনো মূল্যে কোরয়িায় পরমাণু নরিস্ত্রীকরণরে ওপর গুরুত্বারোপ করনে। উত্তর কোরয়িার পরমাণু অস্ত্ররে পরীক্ষা ঠকোতে নতুন করে অবরোধ দওেয়ার প্রস্তুতি নচ্ছিে যুক্তরাষ্ট্র। এ বষিয়ে জাতসিংঘ নরিাপত্তা পরষিদরে প্রতি আহ্বান জানয়িছেনে র্মাকনি প্রসেডিন্টে ডোনাল্ড ট্রাম্প।
উত্তর কোরয়িার বরিুদ্ধে একক পদক্ষপে নওেয়ার বরিুদ্ধে আমরেকিাকে হুঁশয়িার করছেে রাশয়িা। পয়িংইয়ং-এর পরমাণু তৎপরতার জবাবে আর্ন্তজাতকি আইনরে লঙ্ঘন ঘটে এমন কোনো ব্যবস্থা নওেয়া উচতি হবে না বলওে আমরেকিাকে হুঁশয়িার করে দয়িছেে রাশয়িা।
সংকত নরিসনরে জন্য দ্বমিুখী প্রস্তাব দয়িছেে চীন। প্রথমত, উত্তর কোরয়িাকে পারমাণবকি ও ক্ষপেণাস্ত্র পরীক্ষা বন্ধ করতে হব।ে অন্যদকিে দক্ষণি কোরয়িা ও যুক্তরাষ্ট্ররে যৌথ সামরকি মহড়া বন্ধ করতে হব।ে দ্বতিীয়ত, সব পক্ষকে আলোচনার টবেলিে আসতে হব।ে এর লক্ষ্য হব,ে কোরীয় উপদ্বীপকে পারমাণবকি অস্ত্র মুক্তকরে শান্তচিুক্তি সই, যা ৬০ বছররে পুরনো কোরয়িার ওয়ার র্আমস্টিাইস অ্যাগ্রমিন্টেকে প্রতস্থিাপন করব।ে
যদি ট্রাম সরিয়িা ও কোরয়িা দুটি ইস্যুতইে বড় ধরনরে অঘটন ঘটয়িে ফলেতে পারনে। যদি তনিি যুদ্ধ আরম্ভ করনে বশ্বিরে যত ক্ষতি হবে তার চয়েে বশেি ক্ষতি হবে আমরেকিার এ যুদ্ধে চীন ও রাশয়িা একসাথে মোকাবলো করলে তা সামলানোর ক্ষমতা ও মনোবল এখন আমরেকিার নইে। এ যুদ্ধে আমরেকিার পরাজয় হবে বলে মনে হয়। তাতে আমরেকিার একক সুপার পাওয়ার র্মযাদা রক্ষাও কঠনি হতে পারে।

Category:

Leave a Reply