নতুন সংবিধানে নেপাল ধর্মনিরপেক্ষ রাষ্ট্র ঘোষিত

Posted on by 0 comment

23অনিল সেন: নেপালে ধর্মনিরপেক্ষ সংবিধান কার্যকর করে জাতীয় ঐকমত্যের সরকার গঠনের জন্য সব রাজনৈতিক দলের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট রাম বরণ যাদব। প্রধানমন্ত্রী সুশীল কৈরালা গত ২ অক্টোবর প্রেসিডেন্টের সাথে সাক্ষাৎ করে অনুরোধ জানানোর পর এ আহ্বান জানান। সেদিন সুশীল কৈরালা পদত্যাগপত্র রাষ্ট্রপতি রাম বরণ যাদবের কাছে জমা দেন। ২০ সেপ্টেম্বর গৃহীত সংবিধান অনুযায়ী নতুন প্রধানমন্ত্রী নির্বাচন করে নতুন সরকার গঠনের প্রক্রিয়া শুরু করতে প্রেসিডেন্টকে অনুরোধ জানান কৈরালা। এর আগে সকালে পার্লামেন্টে ভাষণে প্রধানমন্ত্রী বলেন, নতুন সরকার গঠনের প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে এবং তিনি সে পথ করে দিয়েছেন। নেপালে নতুন সংবিধান গৃহীত হওয়ার পর ২ অক্টোবর  প্রথম পার্লামেন্ট অধিবেশন বসে। এই সংবিধানে পার্লামেন্টের প্রথম অধিবেশন শুরু হওয়ার সাত দিনের মধ্যে নতুন প্রধানমন্ত্রী, ২০ দিনের মধ্যে স্পিকার ও ডেপুটি স্পিকার এবং এক মাসের মধ্যে প্রেসিডেন্ট ও ভাইস প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের কথা বলা হয়েছে। খবর বাসস, রয়টার্স, আইএএনএস। প্রধানমন্ত্রী কৈরালা এর আগে মন্ত্রিসভার বৈঠকেও প্রেসিডেন্টের সাথে দেখা করে তাকে সংবিধান অনুযায়ী নতুন সরকার গঠনের প্রক্রিয়া শুরু করতে অনুরোধ করবেন বলে জানিয়েছিলেন নেপালের মন্ত্রী লাল বাবু প-িত। প্রধান রাজনৈতিক দলগুলো মতৈক্যে পৌঁছালে নেপালে এক সপ্তাহের মধ্যে নতুন প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হবেন বলে আশা করা হচ্ছে। আর রাজনৈতিক দলগুলো মতৈক্যে পৌঁছাতে ব্যর্থ হলে পার্লামেন্টে ভোটে সংখ্যাগরিষ্ঠতার ভিত্তিতে প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হবেন। নেপালের সংবিধান পরিবর্তনের ফলে প্রায় মাসখানেক ধরে দেশটিতে ভারত-বিরোধী বিক্ষোভ হয়। একপর্যায়ে এই সহিংসতা নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যায়। বিক্ষোভে প্রায় ১০ জনের মতো লোক নিহত হন। দক্ষিণাঞ্চলে ভারত সীমান্তের প্রধান বন্দর এলাকায় বিক্ষোভের কারণে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়।  ভারত সীমান্তবর্তী সমতল ভূমিতে বসবাসকারী বাসিন্দারা দেশটির নতুন সংবিধানের বিরোধিতা করছে, কারণ তাদের মতে এটি ন্যায়সংগত হয়নি। তারা মনে করেন, সংবিধানে যেভাবে নতুন প্রাদেশিক ভাগ করা হয়েছে, তা তাদের সংসদে ন্যায্য অধিকার দেবে না। ৫০ শতাংশের বেশি জনসংখ্যা হিসাবে সংসদে তাদের সেরকমই প্রতিনিধি থাকা উচিত। কিন্তু যেভাবে নতুন সংবিধান লেখা হয়েছে, তাতে তাদের ৩০ শতাংশেরও কম প্রতিনিধি থাকবে।
বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ২৪০ বছর পুরনো রাজতন্ত্র উচ্ছেদের প্রায় সাত বছর পর নেপাল তার নতুন সংবিধান গ্রহণ করেছে, যা দেশটির একটি মাইলফলক হিসেবেই বিবেচনা করা হচ্ছে। ফেডারেল সরকারের আদলে, আর হিন্দু রাষ্ট্র থেকে বেরিয়ে সেই সংবিধানটি গত সপ্তাহে পাস হয়েছে। কিন্তু সেটি যেন দেশটিতে নতুন করে সংকট তৈরি করেছে। নেপালের এই বিক্ষোভের জন্য অনেকে প্রতিবেশী ভারতকেও দায়ী করেছে। অনেকেই বলছেন, ভারত নেপালে তাদের প্রভাব বিস্তার করতেই প্রকাশ্যেই নতুন সংবিধানের সমালোচনা করেছে। ভারত সীমান্তবর্তী এই উত্তেজনার প্রভাব পড়েছে নেপালজুড়ে। কারণ এই এলাকাটি নেপালের অর্থনীতির জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এখানকার সমতলেই নেপালের সবচেয়ে বেশি চাল আর চিনির মতো ফসল ফলে। আর এই সড়ক দিয়েই ভারত থেকে নেপালের দরকারি সব পণ্য দেশের অন্যান্য অংশে যায়। গত ১ অক্টোবর নেপালে ভারতীয় ৪২টি টেলিভিশন চ্যানেল বন্ধ করে দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে দেশটির কেবল টিভি অপারেটররা। দেশটির নতুন সংবিধান প্রণয়ন নিয়ে ভারতের অনানুষ্ঠানিক অবরোধ আরোপের পর তারা এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে জানিয়েছে। নতুন সংবিধান নিয়ে প্রতিবেশী ভারত নেপালেরও ওপর অনানুষ্ঠানিক অবরোধ আরোপ করেছে বলে অভিযোগ করেছে দেশটি। নেপালের নাগরিকরা বলছেন, ভারত দেশটিতে বিভিন্ন ধরনের পণ্যসামগ্রী পরিবহনে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে। তবে ভারত এ অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করে বলছে, তারা নিরাপত্তার কারণে পণ্যের পরিবহন স্থগিত রেখেছে। এদিন নেপালে নতুন সংবিধানের খসড়ার বিরুদ্ধে এক সহিংস বিক্ষোভে পুলিশসহ ১০ জন নিহত হন।

Category:

Leave a Reply