বীর মুক্তিযোদ্ধা সমাজকল্যাণমন্ত্রী সৈয়দ মহসিন আলীর ইন্তেকাল

Posted on by 0 comment

62উত্তরণ প্রতিবেদন: সমাজকল্যাণমন্ত্রী সৈয়দ মহসিন আলী এমপি গত ১৪ সেপ্টেম্বর সকালে সিঙ্গাপুরের একটি হাসপাতালে ইন্তেকাল করেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। তার বয়স হয়েছিল ৬৭ বছর। তিনি কিডনি ও নিউমোনিয়াসহ নানা রোগে ভুগছিলেন। তিনি স্ত্রী, তিন মেয়ে ও অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।
বীর মুক্তিযোদ্ধা মহসিন আলীর মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও জাতীয় সংসদের স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী গভীর শোক প্রকাশ করেছেন। মহসিন আলীর জন্ম ১৯৪৮ সালের ১২ ডিসেম্বর মৌলভীবাজার শহরের শ্রীমঙ্গল সড়কের দরজি মহলে এক মুসলিম পরিবারে। ১৯৬৯ সালে স্কুলের ছাত্র থাকাকালে তিনি ছাত্রলীগের রাজনীতির সাথে যুক্ত হন। ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধে অংশ নেন ও সিলেট বিভাগ সিএনসি স্পেশাল ব্যাচের কমান্ডার হিসেবে সম্মুখযুদ্ধে নেতৃত্ব দেন।
১৯৮৩ সালে মহসিন আলী প্রথম পৌরসভার চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। এরপর আরও দুবার নির্বাচিত হয়ে টানা ১৮ বছর পৌরসভার চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করেন। তিনি ১৯৮৯ থেকে ১৯৯৪ সাল পর্যন্ত মৌলভীবাজার জেলা যুবলীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৯৭ সালে তিনি জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নির্বাচিত হন। ২০০৮ সালের সংসদ নির্বাচনে তিনি মৌলভীবাজার-৩ (সদর-রাজনগর) আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। গত বছরের ৫ জানুয়ারির নির্বাচনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় একই আসন থেকে তিনি আবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন এবং তাকে সমাজকল্যাণমন্ত্রীর দায়িত্ব দেওয়া হয়।

শ্রদ্ধা ভালোবাসায় মহসিন আলীকে শেষ বিদায়
বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষের শ্রদ্ধা নিবেদনের পর রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় গত ১৬ সেপ্টেম্বর সমাজকল্যাণমন্ত্রী ও মুক্তিযোদ্ধা সৈয়দ মহসিন আলীর দাফন সম্পন্ন হয়েছে। ঢাকায় সংসদ ভবনের দক্ষিণ প্লাজা ও মৌলভীবাজারে তার নিজ নির্বাচনী এলাকায় দুদফা জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। সকালে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে আসেন বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ। সংসদ ভবনে মহসিন আলীর মরদেহে শেষ শ্রদ্ধা নিবেদন করেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীসহ মন্ত্রী ও এমপিরা। তার মরদেহ সংসদ ভবনের দক্ষিণ প্লাজায় পৌঁছালে সেখানে জানানো হয় রাষ্ট্রীয় সম্মান। পুলিশের একটি চৌকস দলের পক্ষ থেকে গার্ড অব অনার দেওয়া হয়। সংসদ ভবন প্রাঙ্গণে জানাজা শেষে মরদেহ হেলিকপ্টারে তার নিজ জেলা মৌলভীবাজারে পাঠানো হয়। দুপুরে মৌলভীবাজার সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে জানাজা শেষে হজরত শাহ মোস্তফার (র.) মাজার সংলগ্ন কবরস্থানে মা-বাবার পাশে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন করা হয় তাকে। সংসদ ভবন প্রাঙ্গণে কফিনে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী ও স্পিকার ছাড়াও আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম এমপি, ডেপুটি স্পিকার মো. ফজলে রাব্বী মিয়া, বিরোধীদলীয় নেতার পক্ষে রুহুল আমীন হাওলাদার এমপি ও মসিউর রহমান রাঙ্গা, সংসদ উপনেতা সৈয়দা সাজেদা চৌধুরীর পক্ষে কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী এবং জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জাসদ) পক্ষ থেকে মইন উদ্দীন খান বাদল এমপি। এ ছাড়া বেশ কয়েকটি রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠনের পক্ষ থেকে মরহুমের কফিনে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়। এর আগে মরহুমের রাজনৈতিক সহকর্মী ও পরিবারের পক্ষ থেকে তার কর্মময় জীবনের বিভিন্ন দিক নিয়ে সংক্ষিপ্ত আলোচনা করা হয়। পরে মরহুমের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে মোনাজাত করা হয়। মৌলভীবাজার প্রতিনিধি জানান, মৌলভীবাজার সরকারি স্কুল মাঠে জানাজা শেষে হজরত সৈয়দ শাহ মোস্তফা (র.) মাজার প্রাঙ্গণে মা-বাবার কবরের পাশে বিকেল ৫টা ১৫ মিনিটে মহসিন আলীর দাফন সম্পন্ন হয়। জেলা পুলিশ প্রশাসনের একটি চৌকস দল মুক্তিযোদ্ধা সৈয়দ মহসিন আলীর মরদেহ জাতীয় পতাকায় আচ্ছাদিত করে বিকেল ৩টা ৪৫ মিনিটে বিউগল বাজিয়ে শেষ শ্রদ্ধা জানায়। এরপর জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক প্রকাশ কান্তি চৌধুরী পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।

Category:

Leave a Reply