নানা আয়োজনে জাতীয় শোক দিবস

শাহ সোহাগ ফকির: আগস্ট মানেই শোকের মাস। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৬তম শাহাদাতবার্ষিকীতে জাতি স্মরণ করেছে তার শ্রেষ্ঠ নেতাকে। বিভিন্ন সামাজিক রাজনৈতিক সংগঠন ও সরকারি-বেসরকারি সংস্থা বঙ্গবন্ধুর স্মরণে নানা আয়োজন করে। পৃথক পৃথক আয়োজনের মধ্যে ছিল গান, কবিতা ও কথামালা ইত্যাদি।
বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি এ উপলক্ষে ১০০ শিল্পীর অংশগ্রহণে ‘শত গানে বঙ্গবন্ধু’ শীর্ষক গানের আয়োজন করে। বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির প্রযোজনায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ওপর নির্মিত গানগুলো একাডেমির নিজস্ব ফেসবুক ও ইউটিউব চ্যানেলে সম্প্রচার করা ছাড়াও মাসব্যাপী শোক দিবস উপলক্ষে বিভিন্ন আয়োজন করে। ৭ আগস্ট শোক দিবস উপলক্ষে ‘সোনার মানুষ চাই’ শীর্ষক আলোচনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, ৮ আগস্ট ‘বঙ্গমাতা ও বাংলার নারী’ শীর্ষক আলোচনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, ৯ আগস্ট ‘দুঃখী মানুষের মুখে হাসি ফুটাবো’ শীর্ষক আলোচনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, ১২ আগস্ট ‘করোনার বিরুদ্ধে শিল্প’ শীর্ষক আলোচনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, ১৩ আগস্ট ‘অপ্রতিরোধ্য অগ্রযাত্রায় শিল্প নিয়ে পৌঁছে যাব আমরা উন্নতির শিখরে’ শীর্ষক আলোচনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, ১৫ আগস্ট অনলাইনভিত্তিক আলোচনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান আয়োজিত হয়। অনুষ্ঠানে দেশের গুণী কবি ও শিল্পীদের অংশগ্রহণে মহান মুক্তিযুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে গান ও কবিতা আবৃত্তি অনুষ্ঠিত হয়।
এছাড়া বাংলা একাডেমির আয়োজনে ‘শোক ও শক্তির মাস আগস্ট ২০২১’ শিরোনামে অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। একাডেমির ফেসবুক পেজে সরাসরি আলোচনা ও বঙ্গবন্ধুকে নিবেদিত কবিতা পাঠ ও আবৃত্তি সম্প্রচার করা হয়। কবিকণ্ঠে কবিতা পাঠ পর্বে স্বরচিত ‘বজ্রকণ্ঠ থেমে গেলে’ শীর্ষক কবিতা পাঠ করেন কবি আসাদ চৌধুরী। কবি মুহম্মদ নূরুল হুদা রচিত ‘পনেরো আগস্ট’ কবিতার আবৃত্তি করেন রূপা চক্রবর্তী। ‘রাসেলের সমান বয়সী’ কবিতার আবৃত্তি করেন হাসান আরিফ। ‘শোনো একটি মুজিবরের থেকে’ শীর্ষক সংগীত পরিবেশনা হয়।
বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট দুস্থদের মাঝে খাবার বিতরণ ও শোক র‌্যালির আয়োজন করে। বাংলাদেশ সংগীত সংগঠন সমন্বয় পরিষদ শোক দিবস উপলক্ষে ‘বাঙালির গভীর শোকের ১৫ই আগস্ট’ শিরোনামে আলোচনা ও সংগীতানুষ্ঠানের আয়োজন করে। এছাড়া বাংলাদেশ বেতার ও বাংলাদেশ টেলিভিশনসহ সব বেসরকারি রেডিও ও টেলিভিশন শোক দিবস উপলক্ষে নানা অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।
১৭ আগস্ট শোক দিবস উপলক্ষে বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন শিল্পীদের নিয়ে অনুষ্ঠান আয়োজন করে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি। ২২ আগস্ট শোক দিবস উপলক্ষে ‘বাংলার বর্ণিল সংস্কৃতি’ শীর্ষক আলোচনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান আয়োজিত হয়। ২৪ আগস্ট শোক দিবস উপলক্ষে ‘বাউলের কণ্ঠে বঙ্গবন্ধু’ শীর্ষক আলোচনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান আয়োজিত হয়। ২৫ আগস্ট শোক দিবস উপলক্ষে ‘সবার আগে শিশু’ শীর্ষক আলোচনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান আয়োজিত হয়। ২৬ আগস্ট শোক দিবস উপলক্ষে ‘আমার নূতন যৌবনের দূত’ শীর্ষক আলোচনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান আয়োজিত হয়। ২৮ আগস্ট শোক দিবস উপলক্ষে ‘মূল্যবোধের অবক্ষয়ের বিরুদ্ধে সংস্কৃতি’ শীর্ষক আলোচনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান আয়োজিত হয়। ৩১ আগস্ট শোক দিবস উপলক্ষে ‘প্রবীণদের জন্য সংস্কৃতি’ অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে বঙ্গবন্ধুর স্মরণে মাসব্যাপী বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির শোক দিবসের আয়োজন শেষ হয়।
এছাড়া বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির আয়োজনে একাডেমির মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকির ভাবনা ও পরিকল্পনায় ২১ আগস্টের ভয়াবহতার উপজীব্য কেন্দ্র করে ২১ থেকে ২৩ আগস্ট পর্যন্ত স্থাপনা শিল্প প্রদর্শিত হয়। ২১ আগস্টের গ্রেনেড হামলার বিরুদ্ধে এই স্মৃতিকে জাগ্রত করার অভিপ্রায় শিল্পের আলোয় ২১ আগস্টের ভয়াবহতাকে স্থাপনা শিল্পের মধ্য দিয়ে স্মরণ করার জন্য ‘আগস্ট রিপিটেড অ্যাটাম্প-২০২১’ শিরোনামে প্রদর্শনী শিল্পী অভিজিৎ চৌধুরীর কিউরেটিংয়ে ১৫ শিল্পীর অংশগ্রহণে ৮টি পর্যায়ে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে ২১ আগস্ট ২০০৪-এর ভয়াবহ গ্রেনেড হামলায় নিহত ও আহতদের আর্তচিৎকারসহ বিভীষিকাময় ভয়াবহ চিত্র।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply