শারদীয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানমালা


গত এক মাস সাংস্কৃতিক অঙ্গনে ছিল জমজমাট সব আয়োজন। সেইসব আয়োজনের কথাই জানাচ্ছেন- সোহাগ ফকির

০৫ অক্টোবর : বিশ্ব শিক্ষক দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির স্টুডিও থিয়েটার হলে বিশ্বের বিস্ময় মহীয়সী হেলেন কেলারের জীবন-কর্ম-স্বপ্ন-সংগ্রাম অবলম্বনে নাট্যসংগঠন স্বপ্ন দলের মনোড্রামা ‘হেলেন কেলার’ মঞ্চস্থ হয়।
০৬ অক্টোবর : ‘বঙ্গবন্ধু’ চলচ্চিত্র নির্মাণ বিষয়ে জননেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাথে নির্মাতা শ্যাম বেনেগালের সাথে আলোচনা হয়। বাংলাদেশ ও ভারতের যৌথ প্রযোজনায় নির্মিত হবে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জীবন-সংগ্রাম নিয়ে ‘বঙ্গবন্ধু’ চলচ্চিত্রটি।
০৯ অক্টোবর : বাংলা একাডেমি আবদুল করিম সাহিত্যবিশারদ মিলনায়তনে দেশনেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৩তম জন্মদিন উপলক্ষে ‘লেখক শেখ হাসিনা’ শীর্ষক সেমিনার, স্ব-রচিত কবিতা পাঠ, আবৃত্তি ও সংগীতানুষ্ঠানের আয়োজন করে। এছাড়া সাত দিনব্যাপী শেখ হাসিনার রচিত ও সম্পাদিত গ্রন্থের প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হয়।
শিশু একাডেমি মিলনায়তনে বিশ্ব শিশু দিবস ও শিশু অধিকার সপ্তাহ উপলক্ষে এক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।
১১ অক্টোবর : ফকির লালন সাঁইয়ের ১২৯তম মৃত্যুবার্ষিকীকে সামনে রেখে ‘যে খোঁজে মানুষে খোদা সে তো বাউল’ প্রতিপাদ্য নিয়ে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের উন্মুক্ত মঞ্চে তিন দিনব্যাপী বাংলাদেশ-ভারত বাউল উৎসব শুরু হয়। বাংলাদেশের ১৪ ও ভারতের ৮ জন বাউল ফকিরের গানে মুখরিত হয়ে ওঠে এই উৎসব। সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয় ও ভারতীয় হাইকমিশনের সহযোগিতায় এই উৎসবের আয়োজন করে বাউল বিশ্ব সংঘ।
বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির উদ্যোগে জাতীয় চিত্রশালা মিলনায়তন ও চারুকলা প্লাজায় ২০২০ সালে বঙ্গবন্ধুর ১০০তম জন্মজয়ন্তী সামনে রেখে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান রচিত ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’ এবং ‘কারাগারের রোজনামচা’ অবলম্বনে ‘বঙ্গবন্ধু : জীবন থেকে চিত্রপটে’ শিরোনামে দেশের বিশিষ্ট ১০০ চিত্রশিল্পীর ১০০টি চিত্রকর্ম নির্মাণের আর্টক্যাম্পের আয়োজন করে।
অষ্টম গঙ্গা-যমুনা সাংস্কৃতিক উৎসব শুরু হয়। ১০ দিনব্যাপী এই উৎসবের উদ্বোধন করা হয় বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমিতে।
১২ অক্টোবর : ধানমন্ডির ম্যাপেল লিফ ইন্টারন্যাশনাল স্কুলে মাসব্যাপী বিজ্ঞানভিত্তিক চলচ্চিত্র উৎসব ‘সায়েন্স ফিল্ম ফ্যাস্টিভাল, ২০১৯’-এর উদ্বোধন করা হয়। গ্যেটে ইনস্টিটিউট বাংলাদেশের আয়োজনে রাজধানীর বেশ কয়েকটি স্কুল অংশগ্রহণ করে এই উৎসবে। এই সায়েন্স ফিল্ম ফ্যাস্টিভাল চলবে আগামী ১৫ নভেম্বর পর্যন্ত। অষ্টম গঙ্গা-যমুনা সাংস্কৃতিক উৎসবের দ্বিতীয় দিনে সরব ছিল বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমিসহ রাজধানীর ৬টি নাট্যমঞ্চ। বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালার মিলনায়তনে ভারতের স্বনামধন্য নাট্যদল সয়কের বিখ্যাত নাটক ‘দায়বদ্ধ’ মঞ্চস্থ হয়। এক্সপেরিমেন্টার হলে মঞ্চস্থ হয় রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের গল্প অবলম্বনে নাট্যদল নাট্যতীর্থের ‘কলঙ্ক’। স্টুডিও থিয়েটার হলে মঞ্চস্থ হয় প্যান্টোমাইম মুভমেন্টর নাটক ‘প্রাচ্য’। বেইলি রোডের মহিলা সমিতির ড. নীলিমা ইব্রাহিম মিলনায়তনে হলে মঞ্চস্থ হয় থিয়েটার আর্ট ইউনিটের নাটক ‘গোলাপজান’।
১৪ অক্টোবর : ঢাকার ইরান সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের মিলনায়তনে বিশ্বখ্যাত ইরানী কবি হাফিজ শিরাজিকে স্মরণে এক সাংস্কৃতিক অনূষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে কবি হাফিজের কবিতা ও গজল পরিবেশন করেন শিল্পীরা। ১৩১৫ সালে জন্ম নেওয়া কবি হাফিজ মৃত্যুবরণ করেন ১৩৯০ সালে। প্রেম, মমতা ও মানবতার কবি হাফিজের বাংলার ব্যাপারে ভালোবাসা ছিল। তার এই টান থেকে কবি হাফিজ তৎকালীন ভারতবর্ষে মিষ্টি পাঠিয়েছিলেন বলে জানান বক্তারা।
১৫ অক্টোবর : ফকির লালন সাঁইজির ১২৯তম তিরোধান দিবস উপলক্ষে বিশেষ সাধুমেলা ও শোভাযাত্রার আয়োজন করে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি। গঙ্গা-যমুনা সাংস্কৃতিক উৎসবে বেইলি রোডের মহিলা সমিতি মিলনায়তনে নাট্যসংগঠন থিয়েটার ফ্যাক্টারির নাটক ‘আষাঢ়স্য প্রথম দিবসে’ নাটক মঞ্চস্থ হয়।
১৭ অক্টোবর : অষ্টম গঙ্গা-যমুনা সাংস্কৃতিক উৎসবে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালার থিয়েটার হলে জাগরণী থিয়েটারের নাটক ‘রাজার চিঠি’ মঞ্চস্থ হয়।
১৮ অক্টোবর : নানা আয়োজনে শেখ রাসেলের জন্মদিন পালিত হয়। এ উপলক্ষে রাজধানীসহ সারাদেশে বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্যে ছিল কেক কাটা, আলোচনা সভা, মিলাদ ও দোয়া মাহফিল, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, আনন্দ র‌্যালি, চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা, দরিদ্রদের মাঝে খাবার বিতরণ। ইতিহাসের ঘৃণিত অধ্যায় ১৫ আগস্টের শিকার শেখ রাসেলসহ সকল শহিদের প্রতি বনানী কবরস্থানে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানায় বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ও এর সকল অঙ্গসংগঠন, শিশু একাডেমি, শেখ রাসেল শিশু-কিশোর পরিষদ, শেখ রাসেল শিশু সংসদ, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটসহ বিভিন্ন সংগঠন।
২১ অক্টোবর : বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির প্রাঙ্গণে শুরু হয় ‘বাংলা নাট্যোৎসব’ মহাকাল নাট্য সম্প্রদায়ের তিন যুগ পূর্তিতে ১০ দিনব্যাপী এই উৎসবে বাংলাদেশের ২৭টি ও ভারতের ৫টি নাট্যদল অংশ নেয়। উদ্বোধনের পরে মহাকাল নাট্য সম্প্রদায়ের নাটক ‘শ্রবণ ট্র্যাজেডি’ পরীক্ষণ থিয়েটার হলে এবং নাট্যচক্রের প্রযোজনায় ‘একা এক নারী’ ও মহিলা সমিতি মঞ্চে ব্যতিক্রম নাট্য গোষ্ঠীর প্রযোজনায় ‘তক্ষক’ মঞ্চায়িত হয়।
রাজধানীর বসুন্ধরা কনভেনশন হলে ভারত-বাংলাদেশ ফিল্ম অ্যাওয়ার্ডস-২০১৯ (বিবিএফএ) প্রদান করা হয় দুদেশের বড় পর্দার গুণী তারকাশিল্পী ও কলাকুশলীদের। বাংলাদেশ ও ভারতের চলচ্চিত্র শিল্পীদের এক মিলনমেলায় পরিণত হয় অনুষ্ঠানটি। সুরের সাথে নৃত্যের ছন্দে বর্ণিল হয়ে ওঠে গোটা আয়োজন।
২৩ অক্টোবর : ‘ঢাকা ইন্টারন্যাশনার ফোকফেস্ট’-এর পঞ্চম আসর উদযাপনকে সামনে রেখে আয়োজক কর্তৃপক্ষ এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে জানান, আগামী ১৪ থেকে ১৬ নভেম্বর তিন দিনব্যাপী আর্মি স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে এর্শিয়ার সবচেয়ে বড় লোকসংগীতের এই আসর।
২৪ অক্টোবর : বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমিতে ‘বাংলা নাট্যোৎসব’ দেশ নাটক-এর প্রযোজনায় ‘নিত্যপুরাণ’ মঞ্চায়িত হয়।
২৬ অক্টোবর : বেইলি রোডের মহিলা সমিতি ভবনের ড. নীলিমা ইব্রাহিম মিলনায়তনে সা’দাত হাসান মান্টোর ছোট গল্প ‘টোবাটেক সিং’ অবলম্বনে নাট্যসংগঠন সময় নাট্যদলের ‘ভাগের মানুষ’ মঞ্চস্থ হয়।
২৭ অক্টোবর : মহিলা সমিতি মিলনায়তনে সব্যসাচি লেখক সৈয়দ শামসুল হক রচিত ‘তোরা সব জয়ধ্বনি কর’ নাটক মঞ্চস্থ হয়। নাট্যসংগঠন মুক্তিযুদ্ধের প্রযোজনায় নাটকটিতে ফুটে উঠেছে স্বাধীনতাযুদ্ধের সূচনালগ্নের দৃশ্য।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply