জয় বাংলা কনসার্টে তারুণ্যের জয়গান

উত্তরণ প্রতিবেদন: ঐতিহাসিক ৭ই মার্চের ভাষণের মাহাত্ম্য ছড়িয়ে দিতে গত ৭ মার্র্চ রাজধানীর আর্মি স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হলো জয় বাংলা কনসার্ট। ‘জয় বাংলা’ সেøাগানটি যখন উচ্চারিত হচ্ছিল মঞ্চে, তখন স্টেডিয়ামে উপস্থিত হাজারো দর্শকের কণ্ঠেও উচ্চারিত হয় জয় বাংলা। মহান মুক্তিযুদ্ধে এ সেøাগান যেমন সারাদেশের মানুষকে এক সূত্রে গেঁথেছিল, তেমনি প্রতিটি সংকটে এবং জাতির অর্জনেও যেন এ সেøাগান পুরো জাতিকে একতাবদ্ধ করে।
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের দেওয়া ৭ই মার্চের ভাষণ উপলক্ষে ‘জয় বাংলা’ কনসার্টের আয়োজন করে ইয়াং বাংলার সেক্রেটারিয়েট সেন্টার ফর রিসার্চ অ্যান্ড ইনফরমেশন (সিআরআই)। কনসার্টের মিডিয়া পার্টনার ছিল ইত্তেফাক। কনসার্টে সন্ধ্যার পর উপস্থিত হন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কনিষ্ঠ কন্যা শেখ রেহানা। এ-সময় উপস্থিত ছিলেন সিআরআই ট্রাস্টি রাদওয়ান মুজিব সিদ্দিক ও আন্তর্জাতিক অটিজম বিশেষজ্ঞ সায়মা ওয়াজেদ পুতুল।
তরুণদের পদচারণায় মুখরিত হয়েছিল আর্মি স্টেডিয়াম। দুপুর গড়িয়ে বিকাল হতেই পুরো আর্মি স্টেডিয়াম কানায় কানায় পূর্ণ হয়ে ওঠে। গানের সুরে নেচে গেয়ে বিকাল থেকে রাত পর্যন্ত আনন্দে মেতে ওঠেন তারা। কনসার্ট উপভোগ করার জন্য হাজার হাজার সংগীতানুরাগী ওয়েবসাইটের মাধ্যমে নিবন্ধন করেন। প্রতিটি ব্যান্ডদলই স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রে মুক্তিযুদ্ধের সময় প্রচারিত অনুপ্রেরণামূলক গান গেয়ে শোনায় দর্শকদের। আর বড় পর্দায় দেখানো হয় বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাষণটির রঙিন অংশ। এছাড়া মুজিব গ্রাফিক্স ভিডিও প্রদর্শন করা হয়।
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শততম জন্মবর্ষকে ঘিরে চলা আয়োজন এবার ভিন্নমাত্রা যোগ করে জয় বাংলা কনসার্টে। ইয়াং বাংলার তত্ত্বাবধায়নে ষষ্ঠবারের মতো হওয়া এই আয়োজনের শুরু হয় জাতীয় সংগীতের মাধ্যমে। বরাবরের মতোই ছিল জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক উক্তি। কনসার্টের শুরুতে আসে বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ের পাঁচ ব্যান্ডদল। পুরো কনসার্টে ব্যান্ডদলগুলোর গানের পাশাপাশি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বেশ কিছু ঐতিহাসিক উক্তি দিয়ে সাজানো হয়েছিল। এবারের ষষ্ঠতম আয়োজনে স্বাধীন বাংলা বেতারে প্রচারিত স্বাধীনতার গান গেয়ে মঞ্চ মাতায় দেশের জনপ্রিয় ব্যান্ড দলগুলো। সেই সঙ্গে বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাষণ এবং মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক গ্রাফিকাল রিপ্রেজেন্টেশন ছিল কনসার্টে।
এবারের আয়োজনে ছিল বেশ কিছু ভিন্নমাত্রা ও চমক। দুপুরের পর স্টেজে আসে জনপ্রিয় ব্যান্ডদল এফ মাইনর ব্যান্ড, মিনার রহমান, এভোয়েড রাফা, শূন্য, ভাইকিং, লালন, আরবোভাইরাস। এরপর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বজ্রকণ্ঠে ঘোষণা ৭ই মার্চের ভাষণ। সন্ধ্যার পর মঞ্চ মাতিয়ে রাখে ক্রিপটিক ফেইট, নেমেসিস, ফুয়াদ অ্যান্ড ফ্রেন্ড এবং চিরকুট। এরই মধ্যে বিশেষ আকর্ষণ হিসেবে থাকছে হলোগ্রাফিক প্রজেকশন। রাত ১১টা পর্যন্ত দর্শকরা উপভোগ করেন কনসার্ট।
রেসকোর্স ময়দানে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক ৭ই মার্চের ভাষণ স্মরণ করে এবং সেই ভাষণের গুরুত্ব সম্পর্কে তরুণ প্রজন্মকে অবগত করার লক্ষ্যে বিগত পাঁচ বছর ধরে আর্মি স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে জয় বাংলা কনসার্ট। এ কনসার্ট টেলিভিশন এবং অনলাইনে উপভোগ করেছে ১০ লাখের বেশি দর্শক। আর সরাসরি আর্মি স্টেডিয়ামে উপস্থিত থেকে কনসার্ট উপভোগ করেছেন ৬০ হাজার দর্শক।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply