বিএনপি বিভ্রান্তির ভাইরাস ছড়াচ্ছে : ওবায়দুল কাদের

Spread the love

উত্তরণ প্রতিবেদন: বিএনপি জাতীয় টাস্কফোর্স গঠনের নামে জনমনে বিভ্রান্তির ভাইরাস ছড়াচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এমপি। তিনি বলেন, করোনাভাইরাস প্রতিরোধে বিশ্বের কোথাও টাস্কফোর্স দলীয়ভাবে বা রাজনৈতিক দৃষ্টিকোণ থেকে গড়ে তোলার কোনো নজির নেই। করোনা প্রতিরোধে জাতীয় টাস্কফোর্স বা জাতীয় ঐক্য গড়ে তোলার নামে আসলে বিএনপি অহেতুক বিভ্রান্তির ভাইরাস ছড়াচ্ছে।
গত ২৪ এপ্রিল রাজধানীর সংসদ ভবন এলাকার সরকারি বাসভবন থেকে এক ভিডিও বার্তায় এমন অভিযোগ করে ওবায়দুল কাদের আরও বলেন, করোনাভাইরাস মোকাবেলায় কেউ ভালো পরামর্শ দিলে সরকার তা সানন্দে গ্রহণ করবে। তবে অদৃশ্য শত্রুদের মোকাবেলার জন্য যার যা দায়িত্ব সেই দায়িত্ব পালন করা উচিত। তাই প্রত্যেকেরই স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলাই প্রথম ও প্রধান কর্তব্য বলে দাবি করেন তিনি।
ওবায়দুল কাদের বলেন, চিকিৎসাক্ষেত্রে ভিআইপিদের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা গড়ে তোলার ব্যাপারে একটি মহল মিথ্যা প্রচার চালাচ্ছে। ভিআইপিদের জন্য আলাদা হাসপাতাল তৈরির বিষয়টি স্রেফ গুজব। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ ধরনের কোনো প্রস্তাবে সমর্থন দেননি। তিনি বলেন, রোগীকে রোগী হিসেবেই দেখব। এখানে ধনী-দরিদ্রের কোনো বিষয় নেই, বিত্তবান-বিত্তহীনের কোনো বিষয় নেই। কারণ করোনাভাইরাস দলমত, ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে কাউকেই ছাড় দেবে এমনটা মনে করার কোনো কারণ নেই।
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, কেউ কেউ করোনা প্রতিরোধে জাতীয় টাস্কফোর্স গঠনের জন্য সরকারকে আহ্বান করেছেন। কিন্তু সারা দুনিয়ায় এ ধরনের কোনো নজির নেই। এই দুর্যোগের সময় যার যার দায়িত্ব সতর্কতার সঙ্গে পালন করাই দায়িত্বশীলতার পরিচয়। দল হিসেবে প্রত্যেকেরই দায়িত্বশীল ভূমিকা পালনের প্রয়োজন রয়েছে। এছাড়া ভালো পরামর্শ যদি সরকারকে দেওয়া হয়, তাহলে অবশ্যই করোনা প্রতিরোধের জন্য সানন্দে গ্রহণ করা হবে।
করোনা মোকাবেলায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে দেশবাসীর প্রতি উদাত্ত আহ্বান জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, অদৃশ্য শত্রু করোনাভাইরাস মোকাবেলা করার জন্য যার যার দায়িত্ব পালন করা উচিত। স্বাস্থ্যবিধি মেনে নিজেকে সুরক্ষিত রাখার পাশাপাশি সবাইকে সুরক্ষিত রাখতে হবে। পবিত্র রমজান মাস উপলক্ষে দেশবাসীসহ সমগ্র মুসলিম উম্মাহ’র প্রতি শুভেচ্ছাও জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

ত্রাণ কাজে বাধা দেওয়া হয়েছে – প্রমাণ দিতে পারলে ব্যবস্থা

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এমপি বলেছেন, ত্রাণ দেওয়ায় বাধা দেওয়া হয়েছে, এর তথ্য-প্রমাণ দিতে পারলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। কে বাধা দিয়েছে? কোথায় বাধা দিয়েছে? তথ্য-প্রমাণ দিন। এমন অমানবিক কাজ যারা করছে বা যারা করে, আমরা তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেব। এটা নিঃসন্দেহে শাস্তিযোগ্য অপরাধ। গত ২১ এপ্রিল রাজধানীর সরকারি বাসভবনে সমসাময়িক বিষয় নিয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির ত্রাণ বিতরণে বাধা হচ্ছে বলে দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের অভিযোগের জবাবে ওবায়দুল কাদের এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, বিএনপি মহাসচিবের এমন অভিযোগ একেবারেই ভিত্তিহীন। তাদের এ অভিযোগের কোনো তথ্য-প্রমাণ নেই।
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, বিএনপিকে নিশ্চিহ্ন করার জন্য সরকারের প্রয়োজন নেই। বিএনপিকে নিশ্চিহ্ন করার জন্য সরকার নয়, তারা নিজেরাই নিজেদের ধ্বংসের জন্য যথেষ্ট। তাদের নেতিবাচক রাজনীতিই তাদের ধ্বংস করার জন্য যথেষ্ট। ত্রাণ কার্যক্রমে অনিয়ম প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, এ-ব্যাপারে শেখ হাসিনার সরকার কঠোর অবস্থানে। চাল চোরদের কোনো ক্ষমা নেই। যারা অসহায় মানুষের ত্রাণ আত্মসাৎ করবে তাদের কঠিন শাস্তি পেতে হবে। সরকারি ত্রাণ কার্যক্রমে যারা অনিয়ম করছেন তারা সাবধান হয়ে যান। তিনি বলেন, এই দুর্যোগকালে সংকট মোকাবেলায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাহসিকতা ও পরীক্ষিত নেতৃত্বে জাতি আজ ঐক্যবদ্ধ। তাই ত্রাণ বিতরণের নামে কোনো ধরনের বৈষম্য চলবে না। দলমত নির্বিশেষে সবাইকে এই কার্যক্রম পরিচালনা করতে হবে।

Leave a Reply