ওয়ার্ল্ড এনার্জি ট্রিলেমা ইনডেক্সের তথ্য: জ্বালানি খাতের উন্নয়নে শীর্ষ দশে বাংলাদেশ

Spread the love

উত্তরণ প্রতিবেদন: বর্তমান সরকার বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতে বিস্ময়কর সাফল্য অর্জন করেছে। এ খাতের উন্নয়নে নেওয়া হয়েছে মহাপরিকল্পনা। আর সারাদেশে শতভাগ ও নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ নিশ্চিতে চলছে বিশাল কর্মযজ্ঞ। সরকারের অগ্রাধিকারের কারণে বর্তমানে দেশের ৯৭.৫০ শতাংশ মানুষ বিদ্যুৎ সুবিধা পাচ্ছে। সরকারের রূপকল্পে ছিল ২০২১ সালের ডিসেম্বর, তবে বিদ্যুৎ বিভাগ তা এক বছর এগিয়ে অবশিষ্ট ২.৫০ শতাংশ মানুষকে বিদ্যুৎ সুবিধার আওতায় এনে মুজিববর্ষেই শতভাগ বিদ্যুৎ সুবিধা ঘোষণা করবে। সে লক্ষ্য নিয়েই কাজ করছে বিদ্যুৎ বিভাগ। জ্বালানি খাতে সরকারের সাফল্যের কথা উঠে এসেছে ওয়ার্ল্ড এনার্জি কাউন্সিলের এক প্রতিবেদনেও।
ওয়ার্ল্ড এনার্জি কাউন্সিলের প্রকাশিত ওয়ার্ল্ড এনার্জি ট্রিলেমা ইনডেক্স-২০২০-এর তথ্য বলছে, জ্বালানি খাতের দ্রুত উন্নয়ন করছে এমন শীর্ষ দশের তালিকায় রয়েছে বাংলাদেশ। জ্বালানি নিরাপত্তায় বাংলাদেশের স্কোর ১০০-এর মধ্যে ৩৯। একই মানদ-ে পরিবেশগত টেকসইয়ে বাংলাদেশের স্কোর ৫৬ এবং জ্বালানি সরবরাহ ও প্রাপ্যতায় ৫০.৪। সদস্যভুক্ত ৮৪টি দেশসহ মোট ১৩৩টি দেশের তথ্য বিশ্লেষণ করে এই র‌্যাংকিং প্রকাশ করেছে ওয়ার্ল্ড এনার্জি কাউন্সিল। এর মধ্যে র‌্যাংকিংয়ে স্থান পেয়েছে ১২৮টি দেশ। রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতা ও পূর্ণাঙ্গ তথ্য না পাওয়ায় তালিকা থেকে বাদ পড়েছে ৫টি দেশ। ২০২০ সালে নিরাপদ জ্বালানি নিশ্চয়তায় শীর্ষ দেশ ও এই খাতে দ্রুত এগিয়ে যাওয়া ১০টি দেশের তালিকাও তুলে ধরা হয়েছে ওই প্রতিবেদনে।
বাংলাদেশ জ্বালানি খাতে দ্রুত এগিয়ে যাওয়া শীর্ষ ১০টি দেশের তালিকায় স্থান পেলেও সামগ্রিক পারফরম্যান্সে বাংলাদেশের অবস্থান (র‌্যাংক) ৯৪তম। প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী র‌্যাংকিংয়ে শীর্ষ দশে থাকা দেশগুলোর মধ্যে এক নম্বরে রয়েছে সুইজারল্যান্ড। এরপর আছেÑ সুইডেন, ডেনমার্ক, অস্ট্রিয়া, ফিনল্যান্ড, ফ্রান্স, যুক্তরাজ্য, কানাডা, জার্মানি, নরওয়ে, যুক্তরাষ্ট্র ও নিউজিল্যান্ডের নাম। অন্যদিকে জ্বালানি খাতে দ্রুত উন্নতি করা শীর্ষ ১০টি দেশ হচ্ছেÑ কম্বোডিয়া, মিয়ানমার, কেনিয়া, বাংলাদেশ, হন্ডুরাস, ঘানা, নিকারাগুয়া, ইথিওপিয়া, তাজিকিস্তান ও মঙ্গোলিয়া।
জ্বালানির নিরাপত্তা, মান ও স্থায়িত্ব বিবেচনায় এ, বি, সি ও ডি ক্যাটাগরি করা হয়েছে। সংস্থাটি বলছে, জ্বালানি খাতের উন্নয়নের ফলে বাংলাদেশের জিডিপিতে অভাবনীয় সাফল্য এসেছে। জিডিপি প্রবৃদ্ধি ও মাথাপিছু আয় বেড়েছে। সক্ষমতা পাওয়ায় ডলারের মান, জিডিপি প্রবৃদ্ধির ধারাবাহিকতা বজায় রেখেছে বাংলাদেশ।
জ্বালানি সরবরাহ বিবেচনায় গত পাঁচ বছরে মানসম্মত জ্বালানির ব্যবহার বেড়েছে বাংলাদেশে। এ সময়ে জ্বালানির প্রাপ্যতা বেড়েছে ৬ শতাংশ, সরবরাহ সক্ষমতা বেড়েছে ১১ শতাংশ এবং মাথাপিছু জিডিপি বেড়েছে ৯ শতাংশ।
সংস্থাটির প্রতিবেদন অনুযায়ী, বাংলাদেশে এখনো ৭০ শতাংশ বিদ্যুৎ উৎপাদনে প্রাকৃতিক গ্যাস ব্যবহার করা হচ্ছে।

Leave a Reply