নতুন দিনের প্রত্যাশা : অব্যাহত জয়যাত্রা

সম্পাদকের কথা: বিপুল উৎসাহ-উদ্দীপনার ভেতর দিয়ে বাঙালি জাতির ইতিহাসের একটি অধ্যায় উদযাপিত হলো। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী এবং স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উৎসব সাড়ম্বরে ও নানা বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানমালার মাধ্যমে একাধারে জাতি স্মরণ করেছে জাতির পিতার গৌরবোজ্জ্বল স্মৃতি এবং মুক্তিযুদ্ধে আত্মনিবেদিত লক্ষ লক্ষ শহিদের অবিস্মরণীয় গৌরবগাঁথা। এসব উৎসবমালা কোনো দলীয় দৃষ্টিভঙ্গি বা দলীয় প্রচারের জন্য করা হয়নি। সমগ্র জাতিকে বিশেষত তরুণ প্রজন্মকে বাঙালি জাতির গৌরবোজ্জ্বল সংগ্রাম এবং অর্জনসমূহ সম্পর্কে অবহিত করা এবং সামনের দিকে এগিয়ে যাওয়ায় অনুপ্রাণিত করাই ছিল লক্ষ্য।
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান পাকিস্তানের ঔপনিবেশিক আমলা থেকে বাঙালি জাতিকে স্বাধীনতার স্বপ্ন দেখিয়েছেন এবং হাজার বছরের ইতিহাসে এই প্রথম একটি ‘জাতি-রাষ্ট্র’ অর্জনে বাঙালি জাতিকে নেতৃত্ব দিয়েছেন। অর্ধশতাব্দী আগে বাঙালি জাতি বিশ্বে তার প্রকৃত আত্মপরিচয় নিয়ে মাথা উঁচু করে ঠাঁই করে নিয়েছিল। তারপরও তিনি নতুন স্বপ্নের কথা বলেছেন। তার জীবনের ব্রত হয়ে ওঠে দুঃখী মানুষের মুখে হাসি ফোটানো এবং হতদরিদ্র-পশ্চাৎপদ বাংলাদেশকে উন্নত সমৃদ্ধ ‘সোনার বাংলা’ গড়ে তোলা।
১৯৭৫-এর ঘাতকরা বঙ্গবন্ধুকে সে-কাজটি সম্পন্ন করার সুযোগ দেয়নি। স্বাধীন বাংলাদেশের জীবন থেকে ২৬টি বছর অপচিত হয়ে যায়। অতঃপর জীবনের ঝুঁকি এবং গণতান্ত্রিক সংগ্রামে বহু মানুষের আত্মদানের ভেতর দিয়ে বঙ্গবন্ধু-কন্যা পিতার স্বপ্ন রূপায়ণের জন্য জনগণের ভারডিক্ট লাভ করেন। প্রথম দফায় দক্ষতার সাথে দেশ-পরিচালনার গৌরব অর্জন সত্ত্বেও অন্ধকারের শক্তির সম্মিলিত ষড়যন্ত্রের জন্য অর্জিত বিজয়কে ছিনিয়ে নেওয়া হয়। কিন্তু ইতিহাস থমকে গেলেও ২০০৮ সালে বাংলার মানুষ তিন-চতুর্থাংশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা দিয়ে জননেত্রী শেখ হাসিনা এবং মূলধারার রাজনৈতিক দলগুলোকে ক্ষমতাসীন করে। ইতোমধ্যে শেখ হাসিনার সরকারের এক যুগ পূর্ণ হয়েছে। এই ১২ বছরের বাংলাদেশ উন্নয়নের সোপান বেয়ে উন্নত-সমৃদ্ধ সোনার বাংলার দিকে পা বাড়িয়েছে। অর্থনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক প্রভৃতি প্রতিটি সূচকে বাংলাদেশ এখন উন্নয়নশীল দেশগুলোর প্রথম সারিতে উঠে এসেছে। বাংলাদেশ আজ বিশ্বের কাছে রোল মডেল হিসেবে স্বীকৃত। বাংলাদেশের মানুষের প্রাণশক্তি, সৃজনশীলতা, শ্রমোৎপাদিকা শক্তি এবং মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় নতুন বাংলাদেশ গড়ার সক্ষমতা আমাদের নতুন স্বপ্নে জাগিয়ে তুলেছে। ‘আমরাও পারি’Ñ এই আত্মশক্তি এবং আত্মবিশ্বাস আমাদের উন্নত-সমৃদ্ধ ‘সোনার বাংলা’ গড়ার সংগ্রামেও বিজয়ী করবে। বাঙালি মুক্তিযুদ্ধে যেমন প্রমাণ করেছে, তেমনি উপযুক্ত নেতৃত্ব পেলে দেশ গড়ার সংগ্রামেও যে কাক্সিক্ষত বিজয় ছিনিয়ে আনতে সক্ষমÑ সেটাই আজ প্রমাণিত।
আমাদের এখন নতুন স্বপ্ন- উন্নত, সমৃদ্ধ সোনার বাংলা গড়ার সংগ্রামে ঝাঁপিয়ে পড়তে হবে। অব্যাহত রাখতে হবে অর্জিত বিজয়ের ধারা। নতুন দিন আনার প্রত্যয় ও প্রত্যাশা নিয়ে আমরা এগিয়ে যাব।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply