বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ ফুটবল

Spread the love

আরিফ সোহেল: মুজিববর্ষ উদযাপনের ক্রীড়াঙ্গনের প্রথম আসরেই অংশ নিয়েছে ফিলিস্তিন। জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকী ও মুজিববর্ষ উদযাপন উপলক্ষে আয়োজিত বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের ষষ্ঠ আসরে ফেভারিট হিসেবেই তারা চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। ফাইনালে তারা বুরুন্ডিকে ৩-১ গোলে হারিয়ে। এ নিয়ে টানা দুবার চ্যাম্পিয়ন হয়েছে মধ্যপ্রাচ্যের দেশ ফিলিস্তিন।
খেলার বাঁশি বাজতেই মাত্র তৃতীয় মিনিটেই গোল করে এগিয়ে যায় ফিলিস্তিন; দশম মিনিটে তা হয়ে গেছে দ্বিগুণ। আর ম্যাচের ২৬ মিনিটের মাথায় গোল করে ফিলিস্তিনকে ৩-০ শিরোপা জয়ের সহজ পথ নিজেদের করে নিয়েছে। দ্বিতীয়ার্ধে ৬০ মিনিটের সময় আফ্রিকান মুসলিম দেশ বুরুন্ডি সংখ্যাতাত্ত্বিক ব্যবধান কমিয়েছে মাত্র।
১৯৭৩ সালে বাংলাদেশ আরব-ইসরায়েল যুদ্ধে ফিলিস্তিনকে সমর্থন করে বন্ধুত্বের হাত বাড়িয়েছিল। ১৯৭৪ সালে ওআইসির দ্বিতীয় সম্মেলনেই পারস্পরিক গভীরতায় রূপায়িত হয়েছিল বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও ইয়াসির আরাফাত বৈঠকের মাধ্যমে। সেই থেকে ফিলিস্তিন-বাংলাদেশ একে অপরের বন্ধু। বর্তমান সময়ে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক আরও গভীর হয়েছে। তারা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নামে হেবরন শহরে একটি সড়কের নামকরণ করেছে। আর মুজিববর্ষের প্রথম আনুষ্ঠানিক আসরেই সরবে উপস্থিত হয়েছে।
১৫ জানুয়ারি শুরু হওয়া ছয় জাতির আসরে সেমিফাইনালে ফাইনালিস্ট বুরুন্ডির কাছে ৩-০ গোলে হেরে বিদায় নিয়েছিল স্বাগতিক বাংলাদেশ। অন্যদিকে সিসেলসকে ১-০ গোলে হারিয়ে ফাইনালে ওঠে চ্যাম্পিয়ন ফিলিস্তিন। আসরের অন্য দুটি দল ছিল মরিশাস ও শ্রীলংকা।
বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ফাইনালের প্রথমার্ধের শেষ দিকে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে উপস্থিত হয়ে প্রধানমন্ত্রী অবশিষ্ট খেলা ভিআইপি গ্যালারিতে বসে উপভোগ করেন। এ-সময় যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল এমপি, বাংলাদেশ সফররত ব্রাজিল বিশ্বকাপ দলের গোলরক্ষক জুলিও সিজার, বাফুফে সভাপতি কাজী সালাহউদ্দিন, জ্যেষ্ঠ সহ-সভাপতি সালাম মুর্শেদী এমপি, ক্রিকেটার সাকিব আল হাসানসহ অনেকেই উপস্থিত ছিলেন।
টুর্নামেন্ট শেষে প্রধানমন্ত্রী চ্যাম্পিয়ন ফিলিস্তিন দলের অধিনায়ক ও কর্মকর্তাদের হাতে ট্রফি এবং ৩০ হাজার মার্কিন ডলারের প্রাইজমানির চেক তুলে দেন। সকলকে ধন্যবাদ জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘যারা অংশগ্রহণ করেছেন এবং সমর্থন দিয়েছেন তাদের সবাইকে আমার আন্তরিক ধন্যবাদ জানাচ্ছি। আজকে এই টুর্নামেন্টে যারা চ্যাম্পিয়ন হয়েছেÑ আমাদের বন্ধুপ্রতীম দেশ ফিলিস্তিন, তাদের আন্তরিক ধন্যবাদ এবং অভিনন্দন জানাচ্ছি।’ রানার্সআপ বুরুন্ডিসহ অংশগ্রহণকারী সকল দেশের খেলোয়াড় ও কর্মকর্তা এবং মাঠে আগত সকল দর্শককেও ধন্যবাদ জানান।

Leave a Reply